Press "Enter" to skip to content

মোদী সরকারের মাস্টারস্ট্রোক! ২০২৪ অবধি তাবড় তাবড় দেশকে পেছনে ফেলে ভারত হবে মজবুত অর্থনীতির দেশ

একবার আয়কর (Income tax) নিয়ে চাণক্য ও চন্দ্রগুপ্তের মধ্যে তর্ক বেঁধেছিল। সে সময় চন্দ্রগুপ্ত ছিলেন রাজা, অন্যদিকে চাণক্য ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। চন্দ্রগুপ্তের দাবি ছিল জনগণের ইনকাম ট্যাক্স বৃদ্ধি করতে হবে। চাণক্য প্রশ্নঃ করলেন, তুমি কেন আয়কর বৃদ্বি করতে চাও। চন্দ্রগুপ্ত বলেছিলেন, আমি সমাজসেবা করতে চাই তাই আরো অর্থের প্রয়োজন, বেশি রেভিনিউ সংগ্রহ করতে হবে। তখন মহা পন্ডিত চাণক্য বলেছিলেন, রি ভুল কখনো কত না, কোনো সমাজে মোট উৎপাদনের ৫% এর বেশি ট্যাক্স হওয়া উচিত নয়। চাণক্য বলেছিলেন এখন আমাদের ট্যাক্স হার ৫% লাগু আছে, তাই সংগ্ৰহ বৃদ্বি করতে হলে পরিবেশ এমন সৃষ্টি করো যাতে ব্যাবসা দ্বিগুন হয় এতে ট্যাক্সও দ্বিগুন আসবে। অর্থাৎ মোট কথা দেশের উন্নয়ন করার জন্য ট্যাক্সের হার কমানোর অত্যন্ত প্রয়োজন।

এখন মোদী সরকার ২.০ তাদের প্রথম বাজেটে ( Budget 2020 ) ট্যাক্স এর রূপরেখা তৈরি করেছে তা বেশ আকর্ষণীয়। বিরোধীরা প্রশ্ন তুলে আসছিল যে কিভাবে দেশের অর্থনীতি ৫ ট্রিলিয়ন পৌঁছাবে, সেই উত্তর এখন সামনে চলে এসেছে। ৫ লক্ষ টাকা ইনকাম থেকে শুরু করে ১৫ লক্ষ টাকা অবধি ইনকামের যে তালিকা রয়েছে তাতে সকলের জন্য ট্যাক্স কমানো হয়েছে। যাদের আয় ৫ লক্ষ টাকা থেকে সাড়ে ৭ লক্ষ টাকা অবধি তাদের ট্যাক্স ২০% থেকে কমিয়ে ১০%করে দেওয়া হয়েছে।

বার্ষিক আয় ৭.৫ লক্ষ থেকে শুরু করে ১২.৫ লক্ষ হলে তাদের জন্য আগে ৩০% ট্যাক্স দিতে হতো। এখন সেই ট্যাক্স কমিয়ে ২০% করে দেওয়া হয়েছে। যাদের বার্ষিক আয় ৭.৫ লক্ষ থেকে শুরু করে ১০ লক্ষ তাদের ট্যাক্স ২০% থেকে কমিয়ে ১৫% করা হয়েছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, সরকার ২০২৪ সাল অবধি দেশের GDP ৫ ট্রিলিয়ন ডলার করার টার্গেট নিয়েছে। সেই ক্ষেত্রে এটা সরকার বড়ো পদক্ষেপ ও মাস্টারস্ট্রোক বলে মনে করা হচ্ছে।

৭১ বছরে যেখানে ২ ট্রিলিয়ন ইকোনমি ছিল সেখানে মাত্র ৫ বছরের মধ্যে মোদী সরকারের নেতৃত্বে দেশ ১ ট্রিলিয়ন ডলার ইকোনোমি বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছে। এখন দেশ ৩ ট্রিলিয়ন ডলার ইকোনমিতে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এবার ২০২৪ অবধি কিভাবে দেশ ৫ ট্রিলিয়নে পৌঁছাবে তার জন দেশের বাজেটের এই পদক্ষেপ মুখ্য ভূমিকা নেবে।