Press "Enter" to skip to content

মোদী সরকারের রণনীতি দরুন রাশিয়াকে পেছনে ফেলে দিল ভারত! আর্থিক ক্ষেত্রে পেল বড়ো সাফল্য


অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক উভয় ক্ষেত্রেই দেশীয় অর্থনীতির আমূল পরিবর্তন ঘটেছে। সম্প্রতি, ীয় (RBI) দেশীয় অর্থনীতির জন্য শুভ সংবাদ বয়ে এনেছে। ২৭ শে আগস্ট দেশের বৈদেশিক মুদ্রা রিজার্ভ ১৬.৬৬৩ বিলিয়ন ডলার বৃদ্ধি পেয়েছে তথা ৬৩৩.৫৫৮ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

বিদেশী অর্থ ভান্ডারের মামলায় ভারত রাশিয়াকে পেছনে ফেলে দিয়েছে। বিদেশী অর্থ ভান্ডার থাকার তালিকায় সবথেকে উপরে রয়েছে চীন, এরপরই রয়েছে জাপান ও সুইস। চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে ভারত দেশ। উচ্চতম বিদেশী ভান্ডার দেশের তালিকায় সবথেকে উপরে বসে থাকা চীনের কাছে রয়েছে $ ৩,৩৭১ বিলিয়ন ডলার, জাপান – $ 1,386 বিলিয়ন, সুইস – $ 1,086 বিলিয়ন তিন নম্বরে, ভারত – চার নম্বরে $ 633.73 বিলিয়ন, পাঁচ নম্বরে থাকা রাশিয়া – $ 615.40 বিলিয়ন।

ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের মধ্যে রয়েছে বৈদেশিক মুদ্রা সম্পদ (FCAs), স্বর্ণ রিজার্ভ, অঙ্কন অধিকার (SDRs), এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (IMF)। নতুন বরাদ্দ অনুযায়ী ভারতের SDR হোল্ডিং ১৯.৪০৮ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। দেশের স্বর্ণের মজুদও ১৯২ মিলিয়ন বৃদ্ধি পেয়ে ৩৭. ৪৪১ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। এছাড়াও, আইএমএফ -এর তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে দেশের অবস্থান, আগস্টের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত ১৪ মিলিয়ন ডলার বৃদ্ধি পেয়ে ৫.২২ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এদিকে, বৈদেশিক মুদ্রা সম্পদ, যা সামগ্রিক অর্থনীতির অন্যতম একটি প্রধান উপাদান, ১.৪০৯ বিলিয়ন ডলার কমে ৫৭১. ৬ বিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে।ডলারের পরিপ্রেক্ষিতে, বৈদেশিক মুদ্রার সম্পদের মধ্যে রয়েছে বৈদেশিক মুদ্রা রিজার্ভে থাকা ইউরো, পাউন্ড এবং ইয়েনের মতো নন-ইউএস ইউনিটের মূল্যায়ন বা অবমূল্যায়নের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে।