Press "Enter" to skip to content

যখন ক্যামেরার ফোকাসে অমিত শাহ, তখন রাজ্য চুপচাপ রাজ্য চষছেন ওনারই সৈনিক


কলকাতাঃবোলপুরে যখন হাজার হাজার ক্যামেরা আর মানুষের নজরে অমিত শাহ (), তখন নিঃশব্দ ভাবে বাংলার এক জেলা থেকে আরেক জেলা চষে বেড়াচ্ছেন ওনারই স্পেশ্যাল সেভেন। এরা সবাই অমিত শাহের নির্দেশে কেন্দ্র থেকে এসে বাংলার এক প্রান্তর থেকে আরেক প্রান্তর ঘুরছেন। রাজ্যের আগামী নির্বাচনকে মাথায় রেখে অমিত শাহ খোদ এনাদের দায়িত্ব দিয়েছেন। এদের দায়িত্ব হল সংগঠন মজবুত করা, উঁচু তোলার নেতা থেকে শুরু করে কর্মীদের সাথে নিচু তলার কর্মীদের মধ্যে সামাঞ্জস্য তৈরি করা। আর বাংলার মানুষকে বোঝানো ি ক্ষমতায় এলে কি করবে এবং তৃণমূল ক্ষমতায় থেকে কি ক্ষতি করেছে বাংলার।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এদেরই মধ্যে একজন হলেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) সহচর তথা উত্তর প্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য (Keshav Prasad Maurya)। গতকাল শনিবার অমিত শাহ যখন মেদিনীপুরে শুভেন্দু অধিকারীর সাথে সভা করছিলেন, তখন কেশব প্রসাদ চুঁচুড়ায় সাংগঠনিক বৈঠক ছাড়াও পাড়ায় পাড়ায় ঘুরে মানুষের সাথে জন সম্পর্ক গড়ে তুলছিলেন নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের ভরসার নেতা।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তবে শুধু তিনি একা নন, উনি ছাড়াও আরও ছয়জন কেন্দ্রীয় নেতাদের উপর ২০২১ এর নির্বাচন সামলানোর দায়িত্ব দিয়েছেন অমিত শাহ। এদের মধ্যে রয়েছেন, মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী নরোত্তম মিশ্রা ও ৫ অর্জুন মুন্ডা, সঞ্জীবকুমার বালিয়ান, গজেন্দ্র সিংহ শেখাওয়াত, মুকেশ মাণ্ডবিয়া, প্রসাদ সিংহ পটেল। রাজ্যের ৪২ টি লোকসভার দায়িত্ব এই ছয়জনের কাঁধে ভাগ করে দিয়েছেন অমিত শাহ। প্রতিটি নেতার কাঁধে ৬ টি করে কেন্দ্র।

https://platform.twitter.com/widgets.js

গতকাল মেদিনীপুর থেকে সভা করে এসে রাজারহাট হোটেলে নির্বাচনী কৌশল নিয়ে বৈঠক করেন অমিত শাহ। সেখানে বঙ্গ বিজেপির নেতাদের সাথে সাথে কেন্দ্রীয় নেতারাও হাজির ছিলেন। এছাড়াও ছিলে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া শুভেন্দু অধিকারী এবং কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।

আজ কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান অশোকনগরের একটি সরকারি অনুষ্ঠানেও হাজির ছিলেন। সুত্রের খবর অনুযায়ী, ধর্মেন্দ্র প্রধানের কাঁধে বাংলার নির্বাচনের দায়িত্ব না দেওয়া হলেও, উনি নির্বাচনের আগে ঘনঘন বাংলায় আসবেন। এছাড়াও খোদ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এখন থেকে প্রতিমাসেই রাজ্যের সফরে আসবেন।

রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে বিজেপির রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এছাড়াও নির্বাচনে বিজেপির স্টার প্রচারক সূচীতে থাকবেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। বিহার আর হায়দ্রাবাদের নির্বাচনে যোগী আদিত্যনাথের সভার সাফল্য দেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী বছরের প্রথম মাস থেকেই এরাজ্যে ঘনঘন আসতে পারেন হিন্দুত্ববাদীদের পোস্টার বয় যোগী আদিত্যনাথ।