Press "Enter" to skip to content

যারা যারা লড়াই করতে চাই, সবাইকে অস্ত্র দেব: ঘোষণা ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতির

[ad_1]

কিছুদিন ধরেই ইউক্রেন (Ukraine) ও রাশিয়া (Russia) কে নিয়ে যে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তাতে তাকিয়ে রয়েছে পুরো বিশ্ব। খবর অনুযায়ী 1 লাখ এর বেশি সেনা নিয়ে ইউক্রেনের দরবারে হাজির পুতিন সেনা। কিন্তু যে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে তাই হলো শেষ অব্দি পুতিন তার ধর্যের সীমা অতিক্রম করে আক্রমণ করলো ইউক্রেনে,এখনো অব্দি যা খবর আসছে তাতে রাশিয়া একের পর এক ইউক্রেনের শহর গুলো আক্রমণ করছে। ইউক্রেনের অস্ত্র কারখানা ধ্বংস করেছে রুশ বাহিনী তাছাড়া ইউক্রেনের একটি বিমানবন্দর এখন রুশ সেনার অধীনে।

এমত অবস্থায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির জেলেনস্কি তার নাগরিকদের দেশ রক্ষার জন্য অস্ত্র হাতে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তাদের মাতৃভূমির রক্ষার জন্য সবাইকে অবহান জানিয়েছে ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি। তিনি এক টুইট বার্তায় বলেছেন, যারা এগিয়ে এসে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষার জন্য লড়াই করতে চান তাদের সবাইকে তিনি অস্ত্র দেবেন তিনি।

https://platform.twitter.com/widgets.js

পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে রাষ্ট্রপতি তার দ্বিতীয় টুইটে, বলেছেন যে তার সরকার আঞ্চলিক প্রতিরক্ষার অংশ হিসাবে দেশের প্রতিরক্ষায় যে কোনও বেসামরিক অস্ত্র গ্রহণের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবে। রাশিয়ার হামলার পরেই ইউক্রেন সমস্ত রকম রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা করে। আপাতত রাশিয়া ইউক্রেনের সমস্ত রকম বড়ো শহর গুলি তে হামলা চালিয়েছে। কিন্তু রাশিয়া সেই কথা অস্বীকার করে বলছে তাদের টার্গেট ইউক্রেনের সাধারণ নাগরিক না তারা শুধুমাত্র ইউক্রেনের সামরিক প্রতিষ্ঠান গুলো তে হামলা করেছে।

রুশ হামলায় এ পর্যন্ত ইউক্রেনের ৪০ সেনা নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এই হামলায় ১০ জন সাধারণ নাগরিকও মারা গেছে বলে জানা গেছে। ইউক্রেন দাবি করেছে যে তারা 50 রুশ সৈন্য এবং 6 যুদ্ধবিমান এবং ট্যাঙ্ক ধ্বংস করেছে। অন্যদিকে ভারতীয় দূতাবাস ঘোষণা করেছে যে পরিস্থিতি যতটাই খারপ হোক না কেন তারা ভারতীয় দূতাবাস বন্ধ রাখবে না 18000 ভারতীয় যারা এখনো সেখানে আটকে আছে ভারত সরকার তাদের উদ্ধার করে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসবে।

[ad_2]