Press "Enter" to skip to content

যার জামাই কৃষকদের জমি খেয়ে নেয়, সে অন্য কারোর জমি কি রক্ষা করবে! কংগ্রেসকে তুলোধোনা স্মৃতি ইরানির

ভদোদরাঃ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপির সাংসদ () গুজরাটের ভদোদরায় কংগ্রেস পার্টিকে তুলোধোনা করেন। উনি বলেন, যার জামাই কৃষকদের জমি খেয়ে নেয়, সে কীভাবে অন্য কৃষকদের জমি রক্ষা করবে। স্মৃতি ইরানি () গান্ধীকে নিশানা করে বলেন, কেউ বলতে পারবেন না যে, উনি কখন ছুটিতে যাবে। ইরানি বিজেপির প্রার্থীর প্রচারে গুজরাটে গিয়েছিলেন। জানিয়ে দিই, গুজরাটে আগামী ৩ রা নভেম্বর আটটি বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন হতে চলেছে।

ইরানি নিজের ভাষণে বলেন, কংগ্রেসকে আগে এটা ঠিক করে নেওয়া উচিৎ যে, তাঁদের নেতা কে? সেটা একটি ব্যাক্তি না পরিবার? রাজনীতিতে যদি আপনি একটি পরিবারের মোহতে অন্ধ হয়ে যান, তাহলে মধ্যবৃত্ত নাগরিকদের দুঃখ বুঝতে পারবেন না। কংগ্রেস একটি ডুবন্ত জাহাজ, আর এরজন্য আমি আশ্চর্য হচ্ছি যে, এরা গুজরাটের মানুষের কীভাবে সাহাজ্য করবে?

উনি বলেন, যখন করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে, তখন কংগ্রেসের কোনও নেতা মানুষের মধ্যে গিয়েছিল না। আরেকদিকে, বিজেপির কর্মীরা সবসময় মানুষের পাশে ছিল। স্মৃতি ইরানি রাহুল গান্ধীর নাম না নিয়েই কটাক্ষ করে বলেন, কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদ সংসদেও উপস্থিত ছিলেন না। জানিনা উনি কোথায় ছুটি কাটাতে চলে গিয়েছিলেন। যখন মানুষের দরকার ছিল, তখন তিনি এখানে ছিলেন না।

https://platform.twitter.com/widgets.js

কৃষক ইস্যু নিয়ে স্মৃতি ইরানি দাবি করেন যে, যখন এই ইস্যুতে সংসদে চর্চা হচ্ছিল তখন রাহুল গান্ধী সংসদে উপস্থিত ছিলেন না। উনি রাহুল গান্ধীকে স্বার্থপর বলেও কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, কংগ্রেস সবসময় কৃষকদের কথা বলে, কিন্তু প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি আর আমেঠির প্রাক্তন সাংসদ এই ইস্যুতে চর্চা করার জন্য সংসদে উপস্থিতও থাকেন না। কংগ্রেস সবসময় কৃষকদের ব্যবহার করেছে মাত্র।