Press "Enter" to skip to content

যোগীর রাজ্যে সফল হল আয়ুর্বেদিক ওষুধের পরীক্ষা, মাত্র পাঁচ দিনেই সুস্থ হচ্ছে রোগীরা

ের () ইটাওয়া জেলার () চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে তৈরি করা আয়ুর্বেদিক ওষুধ () করোনার রোগীদের স্বস্তি দিচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ডঃ রাজকুমার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি ২০ জন রোগীর চিকিৎসা এই আয়ুর্বেদিক ওষুধের মাধ্যমে করে সুফল পাওয়া গেছে।

উনি জানান এই ওষুধের পরিণামের পরীক্ষাও করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই এই ওষুধকে দেশের সামনে তুলে ধরা হবে। উনি বলেন, এই ওষুধ ১২ টি আয়ুর্বেদিক মিশ্রন থেকে তৈরি হয়েছে। করোনার রোগীদের উপর পরীক্ষামূলক ভাবে এই ওষুধ ব্যবহার করা হয়েছে। করোনার মামলা সামনে আসার সাথে সাথে বিশ্ববিদ্যালয় এই আয়ুর্বেদিক ওষুধ নিয়ে পরীক্ষা শুরু করে।

প্রথমে এটা দেখা হয় যে, করোনা শরীরের কোন কোন অংশে অ্যাটাক করছে। এরপর প্রাচীন চিকিৎসার সেই সমস্ত ওষুধ গুলোকে বাছা হয়, যে গুলো করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম হবে।

এরপর প্রাচীন ওষুধ গুলোর উপর আধুনিক চিকিৎসার মাধ্যমে গবেষণা করা হয়। মহত্বপূর্ণ গবেষণার জন্য বিশ্ব প্রসিদ্ধ আয়ুর্বেদাচার্য এর সাহায্য নেওয়া হয়। এরপর করোনা হাসপাতালে ভর্তি ১০৩ জন রোগীর মধ্যে ২০ জনকে বেছে নেওয়া হয়। ওই ২০ জনের মধ্যে সবথেকে বেশি করোনার উপসর্গ ছিল।

এথিক্যাল ক্লিয়ারেন্স নেওয়ার পর ওই রোগীদের উপর রিসার্চ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ডকুমেন্টারি প্রুফের সাথে শুরু করা হয়। রাজ নির্বাণ বুটি দিয়ে চিকিৎসা করার পর রোগীরা সুস্থ হয়ে ওঠে। সমস্ত রোগীই পাঁচ থেকে সাত দিনের মধ্যে সুস্থ হয়ে ওঠে।

রাজ নির্বাণ বুটিতে ১২৫ মিলিগ্রাম মাত্রার সাথে পাঁচ মিলিগ্রাম মধু দেওয়া হয়। ডঃ রাজকুমার বলেন, এই পরীক্ষা আরও ২০ জন রোগীর উপর করা হচ্ছে। যদি এই ট্রায়াল সফল হয়, তাহলে এটা মেনে নেওয়া হবে যে ভারত করোনার চিকিৎসা খুঁজে নিয়েছে।