Press "Enter" to skip to content

রাজ্যে সঙ্ঘের স্কুলে মুসলিম ছাত্রের সংখ্যা বাড়ল ৩০ শতাংশ, জ্ঞানের সাথে দেওয়া হচ্ছে রাষ্ট্র প্রেমের শিক্ষা

বিশ্বের সবথেকে বড় সামাজিক সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘকে (RSS) সবসময় মুসলিম বিরোধী সংগঠন বলেই মানা হয়। কিন্তু RSS এর প্রেরণায় শিক্ষা ক্ষেত্রে চলা সংগঠন বিদ্যাী () থেকে পাওয়া পরিসংখ্যানে এই বিভ্রান্তি অনেকটাই দূর হয়ে যায়। কারণ গোটা উত্তর প্রদেশে চলা বিদ্যাভারতী স্কুলে বিগত তিন বছরে ৩০ শতাংশ মুসলিম শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়ছে।

রাজ্যে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ (RSS) এর প্রেরণায় চলা বিদ্যাভারতী স্কুলে মুসলিম ছাত্রদের সংখ্যা বিগত তিন বছরে ৩০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৬ সালে ৪৯ জেলার পুর্ব উত্তর প্রদেশে বিদ্যাভারতী স্কুল গুলোতে মুসলিম পড়ুয়ার সংখ্যা ৬ হাজার ৮৯০ ছিল, যেটা ২০১৯ এ বেড়ে ৯ হাজার ৩৭ হয়ে গেছে। উত্তর প্রদেশের এই স্কুল গুলোতে প্রায় ১২ হাজারের বেশি মুসলিম আর ইসাই পড়ুয়ারা বিদ্যালাভ করে। শুধু পড়া না, এই ছাত্ররা পড়াশুনার সাথে সাথে খেলায়ও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে।

এরকমই একটি স্কুলে পড়াশুনা করা পড়ুয়ার বাবা মোহম্মদ বলেন, ‘আমরা এই স্কুলে শিক্ষার গুণগত মান দেখেছি। এরপরই আমরা সেখানে নিজেদের বাচ্চাদের পড়াশুনার জন্য পাথাই। এর আগে শুনেছিলাম যে, এইসব স্কুলে শুধুমাত্র হিন্দুদের বাচ্চাদের পড়ানো হয় আর সংখ্যালঘুদের অ্যাডমিশন দেওয়া হয় না। কিন্তু পরে আমার ভুল ভাঙল। আমাদের বাচ্চারা এখানে পড়াশুনা করে এগিয়ে চলেছে।”

বিদ্যাভারতীর অতিরিক্ত সচিব (পূর্ব উত্তর প্রদেশ) চিন্তামণি সিং বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষার সাথা সাথে বাচ্চাদের সংস্কারও শেখানো হয়। আর এই কারণে অভিভাবকদের কাছে বিদ্যাভারতী খুবই প্রিয়। এর সাথে সাথে আমাদের স্কুলে দক্ষতার সাথে গুণগত শিক্ষা দেওয়া হয়। আর এটাই কারণ বিগত কয়েক বছরে আমাদের স্কুলে মুসলিম ছাত্রদের সংখ্যা বেড়েছে। উনি জানান, রাজ্যের বিদ্যাভারতী স্কুলে প্রায় ছয় লক্ষ পড়ুয়া শিক্ষা নেয়, যাঁদের মধ্যে বেশিরভাগ গ্রাম্য এলাকার পড়ুয়া।