Press "Enter" to skip to content

রাম মন্দির নির্মাণে আরও একটি বাধা! ভূমি পূজন রুখতে এবার আদালতে গেলো কংগ্রেস কর্মী

নয়া দিল্লীঃ অযোধ্যায় () () নির্মাণের জন্য ৫ আগস্টের প্রস্তাবিত ভূমি পূজন বন্ধ করার দাবি নিয়ে বৃহস্পতিবার ে () পিটিশন দাখিল হয়েছে। দিল্লীর সাকেত গোখলে ের প্রধান বিচারককে লেটার পিআইএল পাঠিয়েছেন। PIL এ বলা হয়েছে যে, ভূমি পূজন কোভিড-১৯ এর আনলক-২ এর গাইডলাইনের লঙ্ঘন করে। ভূমি পূজনে ৩০০ এর বেশি মানুষ একত্রিত হবে, আর এটি করোনার নিয়মের বিরুদ্ধে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

লেটার পিটিশনের মাধ্যমে ভূমি পূজনের কার্যক্রম বন্ধ করার দাবি তোলা হয়েছে। আবেদনে বলা হয়েছে যে, এই কার্যক্রমে করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা আছে। আবেদনে এও বলা হয়েছে যে, উত্তর প্রদেশ সরকার কেন্দ্র সরকারের গাইডলাইনে ছাড় দিতে পারে না। প্রধান বিচারকের কাছে আবেদন করে এই ভূমি পূজন বন্ধ করার দাবি করা হয়েছে। আপনাদের জানিয়ে দিই, আবেদনকারী সাকেত গোখলে অনেক বিদেশী সংবাদমাধ্যমে কাজ করেছেন আর তিনি একজন সোশ্যাল অ্যাক্টিভিস্ট এবং কংগ্রেস ঘনিষ্ঠ এবং কর্মী হিসেবে পরিচিত।

সাকেত গোখলে আর রাহুল গান্ধী

যদিও, ওনার এই লেটার পিটিশন এখনো পর্যন্ত এলাহাবাদ কোর্টের প্রধান বিচারক শুনানির জন্য মঞ্জুরি দেন নি। পিটিশনে রাম মন্দির ট্রাস্টের সাথে কেন্দ্র সরকারকেও পক্ষকার বানানো হয়েছে। আরেকদিকে, রাম মন্দির ভূমি পূজনের সময় নিয়ে নতুন বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। এবার শুভমুহূর্তের সময় নিয়ে শঙ্করাচার্য স্বরুপানন্দ সরস্বতী মহারাজ (Swaroopanand Saraswati) প্রশ্ন খাড়া করেছেন। উনি ভূমি পূজনের জন্য নির্ধারিত সময়কে অশুভ বলে জানিয়েছেন। শঙ্করাচার্য দাবি জানিয়েছেন যে, মন্দির নির্মাণের জন্য জনতার রায় নেওয়া উচিৎ।

উল্লেখ্য, অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের সিদ্ধান্ত সুপ্রিম কোর্ট নিয়েছে। মন্দির নির্মাণের জন্য ভূমি পূজনের তারিখ রামলালা ট্রাস্ট নির্ধারিত করেছে। ৫ আগস্ট ভূমি পূজনের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে, কিন্তু এবার জগতগুরু শঙ্করাচার্য স্বরুপানন্দ সরস্বতী মহারাজ এই ভূমি পূজনের তারিখ নিয়ে প্রশ্ন খাড়া করেছেন। উনি এই ভূমি পূজনের সময়কে অশুভ বলে জানিয়েছেন। শঙ্করাচার্য মহারাজ বলেছেন, আমি রাম ভক্ত, রাম মন্দির যেই বানাক না কেন, আমি খুশি হব। কিন্তু মন্দির বানানোর জন্য উচিৎ তিথি আর শুভ মুহূর্ত নির্ধারণ করার দরকার।