Press "Enter" to skip to content

রাশিয়া থেকে প্রভাবিত হয়ে ভারতের জন্য এক দারুন পদক্ষেপ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

সরকারের আমলে বিশ্বে ভারতের ছবি কেমন তা এই বিষয় থেকেই আন্দাজ করা যায় যে বর্তমানে বিশ্বব্যাঙ্ক থেকে শুরু করে বিশ্বের বড়ো সংস্থাগুলি ভারতের ইনভেস্ট করার জন্য তৈরী হয়ে পড়েছে। মোদী সরকারের আমলে ভারত বিকশিত দেশগুলির তালিকায় নিজের নাম রাখতে সক্ষম হচ্ছে। আসলে মোদী সরকার আসার পর থেকে প্রতিবেশী দেশগুলির সাথে সাথে পুরানো বন্ধুদেশগুলির সাথেও ভালো সম্পর্ক বজায় রেখেছেন। আর এইকারনে প্রধানমন্ত্রীর চীন ও নেপালের সাথে সাথে আমেরিকা ও রাশিয়া ভ্রমনেও গিয়েছিলেন।

রাশিয়া সফরের মাধ্যমে মোদীজি প্রমান করেছিলেন যে ভারত শুধু নিজের স্বার্থ রক্ষায় করে না, একই সাথে পুরানো বন্ধুদের ্য সন্মান দেয়। আপনাদের জানিয়ে রাখি, নরেন্দ্র মোদী এবং রুশ রাষ্ট্রপতি এমনি ভালো বন্ধু যে তারা জনগণের ভালোর জন্যে একে উপরের মতাদর্শ একে উপরে দেশে প্রয়োগ করতেও দ্বিধা বোধ করেন না। আপনাদের এও জানিয়ে দি, প্রধানমন্ত্রী মোদী পুতিনের একটা ভালো পদক্ষেপ থেকে প্রভাবিত হয়ে সেটা নিজেদের দেশে প্রয়োগ করতে চলেছেন। আসলে মে মাসে রাশিয়া সফরের সময় পুতিন মোদীজিকে সোচির ‘সিরিয়াস এডুকশনাল সেন্টার’ এ নিয়েগেছিলেন। সেখানে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী খুবই প্রভাবিত হয়েছিলেন। আসলে ওই কেন্দ্রে প্রতিভাশালী ছাত্রছাত্রীদের বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ করা হয়। রুশের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ছবি নিচে-

মোদীজি চান যে ভারতেও ওইরকম প্লাটফর্ম তৈরী করা হোক যার মাধমে প্রতিভাশীল ছাত্রছাত্রীদের খুঁজে বের করে তাদের প্ৰশিক্ষণ দেওয়া যাবে এবং তারা তাদের প্রতিভার মাধমে পুরো বিশ্বে ভারতের পতাকা উড়াবে। আর এই লক্ষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি কাজও শুরু করে দিয়েছেন। মানব সংশাধন বিকাশ মন্ত্রক প্রথম পর্যায়ের কাজ জোরকদমে শুরু করেছে।

আসলে প্রত্যেক ছেলেমেয়ের মধ্যে একটা গুন থাকে কিন্তু সেটা খুঁজে বের করে ধারালো করার জন্য দরকার হয় প্রশিক্ষণ আর সেই লক্ষেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পুতিনের কাজের থেকে প্রভাবিত হয়ে ভারতেরও এইরকম কেন্দ্র তৈরি করতে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রী রুশের মতো করে যে সেন্টার তৈরী করার কাজে নেমেছেন সেখানে সংগীত, নাচ, ক্রিড়া, আইস হকি, বিজ্ঞান,কলা ও প্রযুক্তি শিল্পের সাথে জড়িত ছেলেমেয়েদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এই বিষয় এর উপর অবশ্য রুশের ওই কেন্দ্রেও িং দেওয়া হয়। একটা বিষয় খুব উল্লেখ্য যে প্রধানমন্ত্রী যেখানেই যান না কেন, সবসময় তিনি ভারতের জনগণের উন্নতির ব্যাপারেই চিন্তা করেন এবং যে দেশে যান সেখানের কিছু থেকে প্রভাবিত হয়ে ভারতকে উন্নতির পথে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।[sg_popup id=”1″ event=”onload”][/sg_popup]

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.