Press "Enter" to skip to content

লাদাখ সীমান্তে বোমারু বিমান পাঠানোর দুঃসাহস চীনের, ভারতও নিচ্ছে কড়া অ্যাকশন

নয়া দিল্লিঃভারতের (India) সঙ্গে লাদাখ (Ladakh) সীমান্তে বিবাদ সৃষ্টি করা চীন (China) LAC-তে এবার বোমারু H-6K মোতায়েন করেছে বলে জানা যাচ্ছে। ওই বিমানে বিধ্বংসী মিসাইল CJ-20 ও রয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। শোনা যাচ্ছ যে, ওই মিসাইলের রেঞ্জ দিল্লি পর্যন্ত। যদিও, চীনের সৈন্য বিশেষজ্ঞরা এমন কথা অস্বীকার করেছেন।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট অনুযায়ী, বেজিংয়ের আশেপাশে মোতায়েন থাকা এই বোম্বার বিমানগুলিকে চীন শিনজিয়াং প্রান্তে পাঠিয়েছে। এই এলাকা ভারত আর চীনের মধ্যে যেখানে বিবাদ চলছে, তাঁর পাশেই। সৈন্য বিশেষজ্ঞদের মতে, এই বোম্বার বিমান অনেক অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত। বলে দিই, চীন এই বছরের জানুয়ারি মাসে ের এয়ারস্পেসেও যুদ্ধ বিমান পাঠিয়েছিল।

চায়না সেন্ট্রাল টেলিভিশন হিমালয়ের পাশে আকাশে ওড়া এই বিমানের জারি করেছে। চীনের সৈন্য বিশ্লেষক অ্যান্টনি ওয়াং-র মতে, বোম্বার বিমান সীমান্তে পাঠানো মানেই প্রতিবেশী দেশের জন্য চিন্তার কারণ। উনি বলেন, H-6K বিমানে জমি আর সমুদ্রতে হামলা করার জন্য CJ-20 যুক্ত করা হয়। কিন্তু সীমান্তে পাঠানো বিমানে KD-D-63 মিসাইল ফিট করা হয়েছে।

LAC-তে বড় এয়ারবেসের অভাবে চীন ভারতের তুলনায় অনেকটাই কমজোর। আর এমন পরিস্থিতিতে বোম্বার বিমান সীমান্তে পাঠিয়ে চীন এটাই বোঝাতে চেয়েছে যে, তাঁদের কাছে ভারতীয় এয়ারবেসে হামলা করার ক্ষমতা রয়েছে। ভারত রাশিয়ান এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম S-400 খুব শীঘ্রই হাতে পাচ্ছে। S-400 হামলাকারী বিমান আর মিসাইলকে হাওয়াতেই ধ্বংস করে দিতে সক্ষম। আশা করা যাচ্ছে যে, ভারত এই মিসাইল সিস্টেম LAC-তে ের পাশে মোতায়েন করবে।