Press "Enter" to skip to content

লাভ জিহাদের ফাঁদে পড়ে নাফিস খানকে বিয়ে করেছিল নেহা! এখন জোরপূর্বক পড়ানো হয় নামাজ, চলে অত্যাচার

[ad_1]

দেশে এমন পরিবারের সংখ্যা অনেক যারা বিপদকে ততক্ষণ সেকুলারিজমের নামে আড়াল করে যতক্ষন না পর্যন্ত তাদের নিজেদের উপর তা ঘনিয়ে আসছে। এখনও অবধি বহুজন রয়েছে যাদের জেহাদের বিষয়ে সচেতন করলে আপনি সাম্প্রদায়িক আখ্যা পাবেন। এরপর বিপদ যখন গলা কেটে নেবে তখন নিজেকে বাঁচাতে সমাজের কাছে আর্তনাদ করবে।

নেহা নামক যুবতীর সাথেও ঠিক এমনটাই ঘটেছে যিনি সেকুলারিজমের চক্করে নাফিসকে বিয়ে করে জীবন যাপন করার সিধান্ত নিয়েছিল। নাফিস বিয়ে আগে অবধি মিষ্টি মিষ্টি কথা বলতো, তাদের প্রেমের জন্য চাঁদ ভেঙে আনার কথা বলতো, সুখে সংসার করার স্বপ্ন দেখাতো।

https://platform.twitter.com/widgets.js

নাফিস খানের মধুর কথায় গলে গিয়ে এবং সেকুলারিজমের ফাঁদে পড়ে নেহা বিয়ে করার সিধান্ত নেয়। এখন বিয়ের পর তাদের এক বাচ্চাও হয়েছে। যারপর নাফিস খান তার আসল স্বরূপ দেখাতে শুরু করেছে। নাফিস খান এখন নেহাকে জোর করে নামাজ পড়তে বলে জানা গেছে। একই সাথে তাকে ভুল ভাল পশুর মাংস খেতেও বাধ্য করা হয়। শুধু এই নয়, নেহাকে পূজো করতেও বাধা দেওয়া বলে জানা গেছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

লাভ জিহাদের ফাঁদে পড়ে নেহার জীবন বর্বাদ হয়ে পড়েছে। এমন দাবি আমরা করছি না। স্বয়ং নেহা ভিডিও বানিয়ে সমাজকে নিজে বলেছে। নেহার জীবন এখন নরকে পরিনত হয়েছে। বাচ্চাকে নিয়ে সে এখন কোথায় যাবে, কি করবে তাও বুঝে উঠতে পারছে না। নেহা জানিয়েছেন নাফিস খান আম আদমি পার্টির সাথে যুক্ত তাই প্রশাসনিকভাবে তার বিরুদ্ধে কিছু করা প্রায় অসম্ভব।

[ad_2]