Press "Enter" to skip to content

শতাব্দী প্রাচীন নিয়ম ভাঙল ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘ, করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য আশ্রমে মিলছে আমিষ খাবার


গড়িয়াঃ ১৯১৭ সালে শ্রীমত স্ী প্রণবানন্দ মহারাজ ভারত সেবাশ্রম ের প্রতিস্থা করেছিলেন। তখন থেকে আশ্রমে আমিষ খাবারের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি ছিল। এই ১০৪ বছরে গোটা ভারত তথা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের আশ্রমে কোনদিনও কোনও আমিষ খাবার ঢোকেনি। কিন্তু সে ১০৪ বছরের পুরনো প্রথা ভেঙে রোগীদের জন্য আশ্রমে এখন মাছ-মাংস এবং ডিম সেদ্ধ পাওয়া যাচ্ছে। পাশাপাশি পাওয়া যাচ্ছে আমিষ স্যুপও। আশ্রমের কর্তৃপক্ষরা জানান, করোনা রোগীদের জন্যই এই কাজ করা হচ্ছে।

গড়িয়ার ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘে করোনা রোগীদের জন্য কোভিড কেয়ার হাসপাতাল খুলেছেন স্বামীজিরা। আর সেই করোনা রোগীদের দ্রুত সুস্থ হওয়া এবং শরীরে যাতে প্রোটিনের অভাব না হয়, সেই কথা মাথায় রেখে আশ্রমে মাছ-মাংস-ডিম রান্না হচ্ছে। মানুষের সেবায় নিয়োজিত হয়ে এই বড়সড় রদবদল আনলেন আশ্রমের স্বামীজিরা। আশ্রমের সন্ন্যাসীরা জানান, এখন ীয় অনুশাসনের থেকে মানবসেবাই বড় ধর্ম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

শুক্রবার থেকে গড়িয়ার প্রণব নগরের ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের দুটি তোলা করোনা হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করা শুরু হয়েছে। আশ্রমে মোট ৩০টি শয্যা বিশিষ্ট কোভিড কেয়ার সেন্টার বানানো হয়েছে। ২০টি বেডে অক্সিজেনের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। যে সমস্ত করোনা রোগীর সবসময় পর্যবেক্ষণের দরকার, শুধুমাত্র তাঁদেরই এখানে ভর্তি করানো হচ্ছে। আশ্রমের দত্তের উদ্েই এখানে কোভিড কেয়ার সেন্টার বানানো হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত তিনজন করোনা রোগী এই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। ২৪ ঘণ্টাই হাসপাতালে দুজন চিকিৎসক উপস্থিত থাকছেন। এছাড়াও চারজন নার্স এবং আশ্রমের ১২ জন সেচ্ছাসেবক রোগীদের দেখভাল করছেন। অ্যাথেনা এডুকেশনাল অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সহযোগিতায় এই আশ্রমে ৩০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে গড়ে তোলা হয়েছে।