Press "Enter" to skip to content

শহরকে সুন্দর বানাতে উঁচু প্রাচীর দিয়ে মসজিদ ঢেকে দিল চীন, দেওয়ালে লিখল কমিউনিস্ট পার্টির স্লোগান



নয়া দিল্লীঃ চীনের শিনজিয়াং প্রান্তে সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অত্যাচার লাগাতার বেড়েই চলেছে। আর এবার চীন মুসলিমদের মসজিদকে নিশানা বানিয়েছে। শিনজিয়াং প্রান্তের ক্বীরা শহরের প্রশাসন জিয়ামন মসজিদকে উঁচু উঁচু প্রাচীর তুলে ঢেকে দিয়েছে। আর নতুন ওই প্রাচীরে কমিউনিস্ট পার্টির স্লোগানও লেখা হয়েছে, যাতে সেখান দিয়ে যাতায়াত করা মানুষ এটা জানতে না পারে যে, সেখানে মসজিদ ছিল।

https://platform.twitter.com/widgets.js

যদিও, চীন সরকার এবং প্রশাসন জানিয়েছে যে, শহর কে সুন্দর করে তোলার জন্যই তাঁরা এই কাজ করেছে। চীনের বিদেশ মন্ত্রালয়ের মুখপাত্র বুধবার স্বীকার করেছেন যে, কয়েকটি মসজিদকে ভেঙে ফেলা হয়েছে, আর কয়েকটিকে আপগ্রেড করা হয়েছে। আর এই কাজ গ্রাম গুলোকে উন্নয়ন করার জন্য করা হয়েছে। তিনি এও জানিয়েছেন যে, মুসলিমরা নিজেদের বাড়িতে বসে নামাজ পড়তে পারেন।

বলে দিই, চীনের বিরুদ্ধে এর আগেই হাজার হাজার মসজিদ ভেঙে ফেলার অভিযোগ উঠেছিল। এমনকি সেখানে একটি মসজিদকে সার্বজনীন শৌচালয়ও বানানো হয়েছিল। গোটা বিশ্বে সেই ঘটনার নিন্দা হয়।

আরেকদিকে, চীন শিনজিয়াং প্রান্তে উইঘুর মুসলিমদের ব্যাপক হারে নিয়ন্ত্রণ করতে চলেছে। ওঁরা এবার উইঘুরদের জনসংখ্যা কমানোর ধান্দায় রয়েছে। আর এরজন্য মহিলাদের নিশানা করা হচ্ছে। তাঁদের গর্ভনিরোধক উপায় আপন করে নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। আর সেই উপায় আপন না করলে বিশাল জরিমানা এবং হাজত বাস করানো হচ্ছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

চীনের আধিকারিকদের দ্বৈত চরিত্র সামনে এসেছে। তাঁরা দেশে হ্রাসপ্রাপ্ত জন্মহার রোখার জন্য চীনের বেশীরভাগ মহিলাকে বেশি করে সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য উৎসাহিত করছে। আরেকদিকে উইঘুরবহুল শিনিজিয়াং প্রান্তে মুসলিম মহিলাদের কম সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। যদিও, আধিকারিকরা দাবি করেছেন যে মহিলাদের গর্ভনিরোধক ডিভাইস লাগানো ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে।