Press "Enter" to skip to content

শাসকদল তৃণমূলের অত্যাচারে সংকটাপন্ন দিনমজুরের জীবন, নীরব প্রশাসন


পরিচালিত পঞ্চায়েত ঢিলছোঁড়া দূরত্বে। কিন্তু তিনদিন ধরে পলিথিন টাঙিয়ে খোলা আকাশের নীচে দিন কাটাতে হচ্ছে এক দিনমজুর দম্পতিকে। তাদের এই দুর্দশার খবর নিতে এখনও পর্যন্ত এলাকার কোনো নেতা বা জন-প্রতিনিধি আসেননি। পাটশাক সিদ্ধ করে খেয়ে কোনরকমে দিন কাটাচ্ছে তারা।

সূ্ত্রের খবর অনুযায়ী, সোমবার রাতে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে তৃণমূল কর্মীর বাড়ির ছাদের জলে ভেসে যায় মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লকের মহেন্দ্রপুর জিপির বড়াী গ্ের দিনমজুর বলরাম দাসের কাঁচা বাড়িটি। হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে ওই কাঁচা বাড়িটি। অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচেন ওই দম্পতি। তবে আহত হয়েছেন দিনমজুর দম্পতি বলরাম দাস ও তার স্ত্রী পুষ্প দাস। ওই রাত থেকেই পলিথিন টাঙিয়ে দিন কাটাচ্ছে ওই পরিবার।

দিনমজুর পরিবারের তরফে অভিযোগ, তাদের কাঁচা বাড়ি সংলগ্ন ইন্দ্রমহন দাস ওরফে বাঙ্কা দাসের বাড়ি। দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে ওই তৃনমূল কর্মীর ছাদের জল চুঁইয়ে পড়ে তাদের কাঁচা বাড়িতে। বহুবার বারণ করলেও লাভ হয়নি উল্টে পরিবারকে হুমকি দেওয়া হয়েছে। এমনকি বেশ কয়েকবার বাড়ি বয়ে এসে দলবল নিয়ে মারধর‌ও করেছে ওই তৃনমূল কর্মী। এমনকি ের হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

তাই প্রাণ বাঁচাতে পুলিশের কাছে অভিযোগও জানাতে পারছেন না তারা। অঞ্চল সভাপতি পঙ্কজ কুমার দাসকে বারবার ফোন করেও কোনো সুরাহা মেলেনি। এছাড়া শোনা গিয়েছে, সাংবাদিকরা তাদের বাড়িতে গিয়েছে বলে হুমকি দেওয়া হয়েছে ওই পরিবারটিকে।