Press "Enter" to skip to content

শুধু পঞ্জশির না, গোটা আফগানিস্তানের জন্য লড়ছি! গর্জন মাসুদের


নয়া দিল্লিঃ গোটা তালিবানের দখলে চলে গিয়েছে। কিন্তু এখনো পঞ্জশিরে পাঞ্জা জমাতে পারে নি কট্টরপন্থী ইসলামিক সংগঠন। ওই এলাকায় তালিনদের কড়া টক্কর দিচ্ছে নর্দান অ্যালায়েন্স। তবে তাঁরা এও জানিয়েছিল যে, তালিবান তাঁদের চুক্তিতে রাজি হলে তাঁরা শান্তিপূর্ণ সমঝোতা করার জন্য প্রস্তুত। নর্দান অ্যালায়েন্সের কম্যান্ডার আহমেদ মাসুদ পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, পঞ্জশিরে শরিয়া আইন লাগু করা যাবে না। আর এখানে গণতন্ত্র কায়েম হবে।

মাসুদের সঙ্গে পঞ্জশির নিয়ে খুনোখুনির বদলে আলোচনাকেই শ্রেয় মনে করেছে তালিবানও। ইতিমধ্যে তাঁদের পঞ্জশির দখলের স্বপ্নে জল ঢেলে দিয়ে মাসুদ বাহিনী ৩৫০-র উপরে নিকেশ করেছে। কয়েকজনকে বন্দিও করে রেকেছে।

জানা গিয়েছে যে, তালিবান মাসুদ বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধবিরতি চুক্তি করতে চেয়েছে। কিন্তু নর্দান অ্যালায়েন্সের কম্যান্ডার আহমেদ মাসুদের ঘনিষ্ঠ ফাহিম দশতি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, তালিবানের সঙ্গে তাঁদের কোনও যুদ্ধবিরতি চুক্তি হয়নি। তিনি জানিয়েছেন, তালিবানের সঙ্গে কথাবার্তা হয়েছে ঠিকই, কিন্তু যুদ্ধবিরতির চুক্তি হয়নি।

ফাহিম জানান, আমাদের কম্যান্ডার বলেছেন আমাদের লড়াই শুধু একটি এলাকার জন্য না। আমাদের লড়াই গোটা আফগানিস্তানের জন্য। তাই, এমন কোনও চুক্তিতে যাওয়ার পরিকল্পনা নেই, যাতে তালিা সুবিধা পেয়ে যায়।

উল্লেখ্য, পঞ্জশিরে মাসুদ বাহিনীর শক্তি বাড়াতে ইতিমধ্যে আফগানিস্তানের প্রাক্তন কম্যান্ডার কিছু , হেলিকপ্টার এবং হাতিয়ার নিয়ে পৌঁছেছেন। এছাড়াও পঞ্জশিরে রয়েছেন খোদ আফগানিস্তানের কার্যবাহ অমরুল্লাহ সা। নর্দান অ্যালায়েন্সের এই তৎপরতাই প্রমাণ করে দিচ্ছে যে, তাঁরা তালিবানের সামনে মাথা নোটও করবে না। এমনকি আহমেদ মাসুদ বলেও দিয়েছেন, ওঁদের সামনে মাথা নোটও করার থেকে মরে যাওয়া ভালো।