Press "Enter" to skip to content

শুধু মিসাইল দিয়েই না, এবার করোনাতেও গাজাকে মারতে চায় ইজরায়েল! উড়িয়ে দিল একমাত্র টেস্টিং ল্যাব



নয়া ইজরায়েলের এয়ারস্ট্রাইকে গাজা পট্টিতে থাকা একমাত্র টেস্টিং ল্যাব গুঁড়িয়ে গিয়েছে। ইজরায়েলের তরফ থেকে করা এয়ারস্ট্রাইকের পর ওই ল্যাবে সমস্ত রকম কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ল্যাবের কাজ বন্ধ হওয়ার পর করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্যালেস্তাইনকে বড়সড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, গাজা পট্টিতে থাকা আল-রিমল ক্লিনিকের একটি অংশ ইজরায়েলের তরফ থেকে করা এয়ারস্ট্রাইকে ধ্বংস হয়ে যায়। এছাড়াও গাজার স্্থ্য মন্ত্রালয় এবং কাতারের রেড ক্রিসেন্ট দফতরও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ইজরায়েলের এই এয়ারস্ট্রাইকে স্বাস্থ্য মন্ত্রালয়ের অনেক কর্মী জখম হয়েছে। কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গাজার ডেপুটি হেলথ মিনিস্টার আবু-আল-রিশা জানান, ইজরায়েলের এয়ারস্ট্রাইকে বহু আধিকারিক জখম হয়েছেন। মন্ত্রালয়ের মুখপাত্র আরশাদ কিদরা বলেন, ইজরায়েলের এই হামলার কারণে প্যালেস্তাইনের স্বাস্থ্য মন্ত্রালয়ের কাজে বাধা সৃষ্টি হয়েছে। যখন দেশে রক্তচক্ষু দেখাচ্ছে, তখনই ইজরায়েল এই হামলা করে করোনা বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের আরও পিছিয়ে দিল।

আরশাদ কিদরা বলেন, ইজরায়েলের তরফ থেকে করা হামলা আমাদের একমাত্র টেস্টিং ল্যাব দারুণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এরফলে স্ক্রিনিং টেস্ট বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ইজরায়েল আর হামাসের বিরুদ্ধে চলা সংঘর্ষের আগে গাজা পট্টিতে প্রতিদিন ১ হাজার ৬০০ মানুষের করোনা টেস্টিং করা হত।

গাজা পট্টিতে একদিকে ইজরায়েলের তরফ থেকে হামলা চলছে, আরেকদিকে করোনার মারও সহ্য করতে হচ্ছে ওদের। গাজায় করোনা পজিটিভিটি রেট ২৮ শতাংশ, যা বিশ্বের সবথেকে বেশি আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে একটি। আরেকদিকে, ইজরায়েল এখন পুরোপুরি করোনা মুক্ত। সেখানে মাক্স ছাড়াই মানুষ রাস্তায় ঘুরে বেরাতে পারে। কিন্তু গাজার একমাত্র করোনা টেস্টিং ল্যাব ধ্বংস করে প্যালেস্তাইনকে আরও বিপদের মুখে ঠেলে দিল ইজরায়েল।