Press "Enter" to skip to content

শেষ পর্যায়ে Agni-V মিসাইলের পরীক্ষণ, আওতায় থাকবে অর্ধেক বিশ্ব, কান্নাকাটি শুরু চিনের

নয়া ঃ ভারতের পরমাণু শক্তি সম্পন্ন আন্তর্মহাদেশীয় ব্যালেস্টিক Agni-V নিয়ে চরম আতঙ্কে রয়েছে। চিনের আতঙ্কের প্রধান কারণ হল, Agni-V মিসাইলের রেঞ্জে তাঁদের গোটা দেশ রয়েছে। চিনের এমন কোন শহর নেই যেটি এই মিসাইলের প্রকোপ থেকে বাঁচতে পারবে।

Agni-V আন্তর্মহাদেশীয় ব্যালেস্টিক মিসাইলটিকে প্রতিরক্ষা গবেষণা এবং অনুসন্ধান কেন্দ্র আর ভারত ডায়নামিক্স লিমিটেড মিলে তৈরি করেছে। এই মিসাইলের রেঞ্জ ৫ হাজার থেকে ৮ হাজার কিমি হবে বলে জানা যাচ্ছে। চিন সহ অনেক দেশই অভিযোগ করে বলেছে যে, ভারত এই মিসাইলের প্রকৃত রেঞ্জের কথা কাউকে জানাতে চাইছে না। মিসাইলের রেঞ্জ কতটা সেটা আসল ইস্যু না, মদ্দা কথা হল চিন-পাকিস্তান সহ এখন অনেক দেশের এটাই আশঙ্কা যে, এই মিসাইলের আওতায় তাঁদের সম্পূর্ণ সীমারেখা চলে আসছে।

Agni-V আন্তর্মহাদেশীয় ব্যালেস্টিক মিসাইলটির ওজন ৫০ হাজার কিলোগ্। মিসাইলটি ১৭.৫ মিটার দীর্ঘ। মিসাইলটি ৬.৭ মিটার প্রস্থ। আর এই মিসাইল ১ হাজার ৫০০ কেজি ওজনের পরমাণু হাতিয়ার বহন করতে সক্ষম। মিসাইলটি এক সেকেন্ডে প্রায় ৯ কিমি দূরত্ব নির্ধারণ করতে পারবে। ২৯ হাজার ৪০১ কিমি প্রতি ঘণ্টার গতিতে শত্রুদের উপর হামলা করতে সক্ষম এই মিসাইল।

ভারত যদি এই মিসাইলের ব্যবহার করে তাহলে ভারতের নিশানায় গোটা এশিয়া, ইউরোপ আর আফ্রিকার কিছু অংশ থাকবে। এই মিসাইলের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ দিকটি হল এটি মাল্টিপল ইন্ডিপেন্ডেন্টলি টার্গেটেবল রি-এন্ট্রি ভিহিকলসর (MIRV) সঙ্গে যুক্ত। MIRV প্রযুক্তিতে মিসাইলের উপর লাগানো ওয়ারহেডে একটি হাতিয়ারের বদলে অনেক কয়েকটি হাতিয়ার যুক্ত করা যায়। এর মানে এই যে, এই মিসাইল এক সঙ্গে অনেক কয়েকটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে পারবে।

এখনও পর্যন্ত এই মিসাইলের সাতটি সফল পরীক্ষণ করা হয়েছে। এবার শেষ পরীক্ষণের পর্যায়ে রয়েছে অগ্নি-V। এই মিসাইলের অবিচল লক্ষ্য আর এর বিধ্বংসী শক্তি শত্রুপক্ষের ঘাম ছুটিয়ে দেবে। চিন আপত্তি জাহির করে বলেছে যে, এই মিসাইলের সঠিক রেঞ্জ সবার সামনে আনছে না ভারত সরকার। তাঁদের মতে গোটা বিশ্ব যাতে ভারতের এই মিসাইল তৈরির কাজে আপত্তি না জাহির করতে পারে, সেই জন্য তাঁরা এই সঠিক রেঞ্জ গোপন রেখেছে।