Press "Enter" to skip to content

সংরক্ষণ বন্ধের পথে ভারতে? সুপ্রিম কোর্টের হুঁশিয়ারির পর উঠছে প্রশ্ন

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ গরিবদের সংরক্ষণ দেওয়ার মামলায় কেন্দ্রের উপর চরম ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। শীর্ষ আদালত বলেছে যে, সরকার যদি আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া (EWS) অর্থাৎ গরিবদের সংরক্ষণ দেওয়ার জন্য ৮ লক্ষের টাকার আয় সীমা নির্ধারণ করার পরিকাঠামো না বানায়, তাহলে সংরক্ষণে স্থগিতাদেশ জারি করে দেওয়া হবে।

সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, কেন্দ্র হাওয়ায় তীর মেরে ৮ লক্ষ টাকা আয় সীমা নির্ধারণ করতে পারে না আর তাঁর ভিত্তিতে নিয়ম বানাতে পারে না। এর জন্য একটি মাপদণ্ড থাকা উচিৎ। দরকারে কোনও পর্যবেক্ষণ দেখান আমাদের। সুপ্রিম কোর্ট বলে, আপনারা যদি কোন জনসংখ্যার ভিত্তিতে পর্যবেক্ষণ করে থাকেন তাহলে সেগুলো তুলে ধরুন।

শীর্ষ আদালত বলে, আপনাদের যদি কোনও পর্যবেক্ষণই না থাকে, তাহলে কী আমরা এই নিয়ম খারিজ করে দেব? যদি অন্যান্য পশ্চাদপদ শ্রেণী (OBC) এবং EWS এর জন্য লেয়ার নির্ধারণের ভিত্তি একই হয়, তাহলে কি এটাকে নির্বিচারে বিবেচনা করা যেতে পারে? আদালত দুটি মন্ত্রালয়কে আগামী ২৮ তারিখের মধ্যে জবাবদিহি করতে বলেছে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্র সরকার মেডিক্যাল কলেজে অ্যাডমিশনের জন্য NEET-তে OBCদের জন্য ২৭ শতাংশ আর আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়াদের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ দেওয়ার নোটিশ জারি করেছে। আর সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্রের এই নির্দেশকেই চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছে।

মোদ্দা কথা গরিবদের সংরক্ষণ দেওয়া না, গরিবদের চিহ্নিত করা। এর ফলে যোগ্য প্রার্থীই গরিবদের সংরক্ষণের সুবিধা পাবে। সরকার নির্ধারণ করেছে যে, বছরে ৮ লক্ষের কম আয় করা পরিবারকে EWS ক্যাটাগরিতে সংরক্ষণ দেওয়া হবে। আর এটা নিয়েই আপত্তি উঠেছে। কারণ OBCদের জন্যও একই মানদণ্ড নির্ধারণ করেছে সরকার। এখন OBC-রা যদি বছরে ৮ লক্ষের উপরে আয় করে, তাহলে তাঁরা এই সংরক্ষণের দাবিদার হতে পারবে না।

[ad_2]