Press "Enter" to skip to content

‘সবাইকে উদ্ধার করে উনি ফেঁসে গিয়েছেন” ঘাটাল পরিদর্শনের ছবি ভাইরাল হতেই ট্রোল্ড মুখ্যমন্ত্রী


ঘাটালঃ অতিবৃষ্টি আর DVC থেকে জল ছাড়ার কারণে চরম দুর্ভোগ শুরু হয়েছে বাংলার জেলায় জেলায়। বিভিন্ন এলাকা জলমগ্ন। বাড়িঘর ছাড়া বহু মানুষ। বিশেষ করে ঘাটালের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠেছিল। বন্যার জলের কারণে প্রাথমিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছিল ঘাটালের বাসিন্দারা। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী অজস্র মানুষকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেয়।

রাজ্যের তরফ থেকেও বন্যা দুর্গতদের জন্য বিশেষ বন্দোবস্ত করা হয়েছিল। ত্রাণ ির থেকে শুরু করে ওষুধ, পানীয় জলের ছিল ব্যবস্থা। তবে দিন কয়েক ধরে বৃষ্টি না হওয়ায় আশঙ্কা কিছুটা কমলেও দুর্ পুরোটা কেটে যায় নি। কারণ এখনও বিস্তীর্ণ এলাকা ডুবে রয়েছে জলের তলায়। আর সেই এলাকার পরিদর্শন করতে মঙ্গলবার ঘাটালে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়।

উনি সেখানে গিয়ে আবারও ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের ইস্যু তুলে কেন্দ্রকে তুলোধোনা করেন। তিনি জানান, কেন্দ্র ইচ্ছে করে ঘাটালে মাস্টারপ্ল্যান লাগু করছে না। এই প্ল্যান লাগু হলেই ঘাটালবাসীর দুর্ভোগের দিন কাটবে। সাথে সাথেই তিনি জানান, “পরিকল্পিত ভাবে বন্যা করা হচ্ছে। ৫০০ কোটি টাকায় চেকড্যামগুলি তৈরি হয়েছে। কিন্তু পরিকল্পনা করে কাজ হচ্ছে না। প্রশাসনকে আরও বেশি কাজ করতে হবে। আরও অনেক ক্যাম্প তৈরি করতে হবে।”

তবে মুখ্যমন্ত্রীর গতকালের ঘাটাল সফর ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ছড়িয়ে যাওয়ার পর চরম ব্যাঙ্গ-বিদ্রুপ চলছে। বিজেপির তরফ থেকে গতকালই একটি ছবি শেয়ার করে লেখা হয়, ‘যখন প্রত্যেকে সংলগ্ন শুকনো রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছে তখন তিনি জলে দাঁড়িয়ে ফটো তুলছেন। এটা তখনই হয় যখন রাজনীতি করতে করতে ঘটনাটি নাটকে পরিণত হয়।”

তবে শুধু বিজেপিই না, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন পেজ আর গ্রুপে মুখ্যমন্ত্রীর এই ছবি নিয়ে ব্যাঙ্গ চলছে। অনেকে আবার ঠাট্টা করে এও লিখছেন যে, ‘মুখ্যমন্ত্রী সবাইকে জল থেকে বাঁচিয়ে নিজে ফেঁসে গিয়েছেন।” উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রীর ঘাটাল সফরের যেই ছবিগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় হচ্ছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, সবাই শুকনো জায়গায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন, এমনকি ঘাটালের সাংসদ দেবও শুকনো জায়গায় রয়েছেন, আর মুখ্যমন্ত্রী পায়ের পাতা ভেজানো দাঁড়িয়ে রয়েছেন। আর এই কারণেই এই ছবিগুলি নিয়ে এত ট্রোল হচ্ছে।