Press "Enter" to skip to content

“সমস্থ দাঙ্গাবাজকে কাঁদতে হবে” মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ দেখালেন প্রশাসনিক ক্ষমতার বাহুবলী রূপ।

প্রশাসনিক ব্যাবস্থা কেমন হওয়া উচিত তা নিয়ে চাণক্য বেশিকিছু উক্তি দিয়েছিলেন। এর মধ্যে চাণক্য যে বিষয়টির উপর জোর দিয়েছিলেন তা হলো রাজার দৃঢ়তা। রাজা দৃঢ় না হলে পুরো রাজ্যের প্রশাসনিক ব্যাবস্থা দুর্বল হওয়ার কথা বলেছিলেন চাণক্য। অন্যদিকে রাজা দৃঢ় হলে সমস্থ পরিস্থিতির মোকাবিলা করার ক্ষমতা থাকবে। বর্তমান সমাজে রাজার জায়গা মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রী দ্বারা পরিবর্তিত হয়েছে।। এখন নিয়ে যখন দেশজুড়ে উপদ্রব চলছে তখন () দেখিয়েছেন কিভাবে অশান্তির দমন করতে হয়। কিভাবে চাণক্য নীতিকে বাস্তবায়ন করতে হয়। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ে প্রায় হাজার সংখ্যক দাঙ্গাবাজকে গ্রেফতার করা হয়েছে, ৫ হাজার জনকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে, ২২ জনকে গুলি করে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও খবর রয়েছে। শুধু এই নয় যারা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের নামে দাঙ্গা ফ্যাসাদ করেছে, সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করেছে তাদের থেকে ক্ষতিপূরণ নেওয়ার কাজও শুরু হয়েছে।

রাজ্য সরকার দাঙ্গাবাজদের CCTV ফুটেজ ও ভিডিও গ্রাফির মাধ্যমে চিহ্নিত করে তাদের বাড়িতে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নোটিস পাঠিয়েছে। প্রায় ৮০ জন দাঙ্গাবাজদের দোকান শীল করে দেওয়া হয়েছে। বুলন্দশহরের দাঙ্গাবাজরা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৬.২৭ লক্ষ টাকা জমা করিয়েছে। ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সাথে সাথে পরবর্তীকালে দাঙ্গা না করার শপথ গ্রহণ করেছে। উত্তরপ্রদেশ জুড়ে যত সরকারি, বেসরকারি ক্ষতি হয়েছে তার লিস্ট তৈরি করা হয়েছে। সরকার জানিয়েছে সমস্থ ক্ষতিপূরণ দাঙ্গাবাজদের থেকেই তোলা হবে।

এসমস্থ কিছুর মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের অফিস থেকে যা টুইট করা হয়েছে তো বেশ লক্ষণীয়। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের টুইটার হ্যান্ডেল থেকে দাঙ্গাবাজদের সংক্রান্ত টুইট করা হয়েছে। লেখা হয়েছে, ” সমস্থ দাঙ্গাবাজ হতবাক, সমস্থ উপদ্রবী হতবাক। যোগী সরকারের কঠোরতা দেখে সমস্থ কট্টরতা নীরব। যা ইচ্ছে করে নাও,ক্ষতিপূরণ দাঙ্গাবাজদের থেকেই নেওয়া হবে। এটাই যোগীজির ঘোষণা, সমস্থ দাঙ্গাবাজেদের এবার কাঁদতে হবে”।

মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের অফিস থেকে করা এই টুইট এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। একই সাথে দেশজুড়ে যোগী সরকারের নেতৃত্বে চলা প্রশাসনের প্রশংসাও চারিদিকে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, উত্তরপ্রদেশে দাঙ্গাবাজদের উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করে নেওয়া হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের হাত খুলে দেওয়া হয়েছে। যোগী সরকার যেভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে সেই পথেই চলার ঘোষণা করেছে কর্ণাটকের ইয়েদুরাপ্পা সরকার।।