Press "Enter" to skip to content

সরকারি চাকরি পেতে নিজেদের মাওবাদী বলে দাবি করছেন সাধারণ মানুষজন! সমস্যায় পুলিশ প্রশাসন


কোনো মানুষ কখনোই নিজের উপর তকমা লাগাতে চান না। তবে হটাৎ করে নিজেকে মাওবাদী পরিচয় দেওয়ার ধুম পড়েছে। আসলে পশ্চিমবঙ্গে চাকরির বড়ো আকাল। তবে যদি কেউ মাওবাদী হয় তাহলে সেই ব্যক্তি সহজেই পেয়ে যাচ্ছে সরকারি । আর এই কারণেই পুরুলিয়ায় নিজেকে মাওবাদী পরিচয় দেওয়ার বড়ো ্ড তৈরি হয়েছে।

এক সংবাদ মাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, এর দরুন রীতিমতো সমস্যায় পড়েছে । কারণ, কে সত্যিকারের মাওবাদী আর কে নয় তা খুঁজে বের করতে গভীর পর্যবেক্ষণ করতে হচ্ছে পুলিশ প্রশাসনকে। জানিয়ে দি, সোমবার দিন ১৯ জন প্রাক্তন মাওবাদী পুলিশ বিভাগে চাকরি পেয়েছে। অর্থাৎ যে চাকরি পাওয়ার জন্য সাধারণ ছেলে মেয়েদের নাজেহাল দশা সেই চাকরি কোনো যোগ্যতা ছাড়াই হাতের মুঠোয় প্রাক্তন মাওবাদীদের।

সরকারের তরফে বলা হয়েছে, মাওবাদীদের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে এমন পদক্ষেপ। সোমবার দিন এক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে মাওবাদীদের হাতে তুলে দেওয়া হয় চাকরির নিয়োগপত্র। লক্ষণীয়, সোমবার দিন যে ১৯ জনকে চাকরি দেওয়া হয়েছে তাদেরকে নিয়ে মোট ২০৬ জন মাওবাদীকে জেলাতেই হোমগার্ডের চাকরি দেওয়া হয়েছে।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার পর এদেরকে পাঠানো হবে ট্রেনিংয়ে। ৪২ দিন ধরে চলবে ট্রেনিং। এরপর এরাই হবে আইনের শৃঙ্খলার রক্ষক। অবশ্য সরকারের এই পদক্ষেপ বাধা তৈরি হয়েছে লাগাতার বেড়ে চলা ভুয়ো মাওবাদীদের সংখ্যা। কারণ ভুয়ো মাওবাদীদের চিহ্নিত করতে গিয়ে যাচ্ছে সময়।