Press "Enter" to skip to content

সামরিক ক্ষেত্রে বড়ো উচ্চতা হাসিল করল ভারত! শুরু হলো শক্তিশালী হাতিয়ার FUFA এর টেস্ট

[ad_1]

সামরিক ক্ষেত্রে আরো কয়েক ধাপ এগিয়ে গেল ভারত। ফিউচারিস্টিক আনম্যানড ফায়ার ইয়ারক্রাফট অর্থাৎ এফ্ ইউ এফ্ এ কিছু মানুষ একে ফুফাও বলেন। ভারত এই FUFA এর টেস্ট সম্পন করেছে। এটি হল এক বিশেষ ধরনের যুদ্ধ বিমান যা ভারতীয় এম যুদ্ধবিমান বা আমেরিকি এফ্ 22 বা এফ্ 32 এর থেকেও বেশি উন্নত। আন ম্যানড বলে এই ড্রোনের মত হলেও দুটির মধ্যে অন্তর অনেক। ড্রোনের কাজ হচ্ছে স্থল ভূমিতে আঘাত করা। কিন্তু এই একটি যুদ্ধ জাহাজ এর কাজ যে শুধু স্থল ভূমিতে হামলা করা তাই নয় সাথে শত্রুর যুদ্ধ জাহাজ বা ড্রোন বা মিসাইল সব কিছুকে হামলা করে ধ্বংস করা। পুরোটাই একটা যুদ্ধবিমান কিন্তু ড্রোনের মত এতে কোনো চালক থাকবে না।

এটাকে ভূমি থেকেই পরিচালনা করা হবে এবং এতে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বেশি ব্যাবহার করা হবে। যাতে আকাশে যখন যুদ্ধ হবে তখন শত্রুদের বিমানের উপর এটা চাপ সৃষ্টি করতে পারে। সম্প্রতি এর পরীক্ষা নিয়ে দুটো বড়ো খবর সামনে এসেছে। প্রথমত, ডি আর ডি ও এর একটা শাখা এজেন্সি এ ডি এ যার আই আই টি কানপুরের ল্যাবরেটরিতে উইন্ড টানেল সুবিধা উপলব্ধ আছে।

সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে যে এই উইন্ড টানেল এ এর মডেলের সাবসনিক পরীক্ষা শুরু করা হয়েছে। যেখানে এর মডেলটাকে গতিকে এক দশমিক দুই ম্যাক গতিতে পরীক্ষা করা হবে। এরপর এই মডেলের একটা ট্রান্সসনিক পরীক্ষাও শীগ্রই করা হবে। যেখানে এই মডেলটাকে দুই দশমিক এক ম্যাক গতিতেও পরীক্ষা করা হবে। এখন যে মডেলটা রয়েছে এটাতে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। সমস্ত প্রাথমিক পর দেখা হবে এর ডিজাইন কোথায় খামতি রয়েছে।

তারপর সেই অনুযায়ী এতে পরিবর্তন করা হবে। যদিও সম্পূর্ণ এই তৈরি হয়ে বিমান বাহিনীতে আসতে অনেক সময় লাগবে। তবে এটা নিশ্চিন্ত কে এম যুদ্ধ জাহাজের প্রায় পাঁচ বছর পর এটি আসবে। এই বড়ো বড়ো যুদ্ধ জাহাজ তৈরি হতে অনেক সময় লাগে তাই এত কাজ শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, আমেরিকার এফ্ 22 এর কাজ শুরু হয়ে গিয়েছিল 1985 এর পরই। তারপর এটি তৈরি হতে কুড়ি থেকে পঁচিশ বছর সময় লেগেছিল।

আমেরিকা এত আগে কাজ শুরু করেছিল বলেই আজ সারা বিশ্বের মধ্যে একমাত্র আমেরিকার কাছে এক মাত্র এত অত্যাধুনিক যুদ্ধ বিমান রয়েছে। যেখানে ভারত এতদিনে এফ্ ইউ এফ্ এ এর কাজ শুরু করল সেখানেই আমেরিকা পাঁচ বছর আগে একি প্রজেক্টর সিক্সথ ভার্সনের উপর কাজ শুরু করে দিয়েছে এবং এফ্ এ এক্স এক্স নামে যুদ্ধ বিমান প্রস্তুত করছে। এটাও অনুমান করা হচ্ছে আমেরিকার সিক্সথ ভার্সনের বিমান তৈরির দু-তিন বছরের মধ্যে ভারতের বিমানটিও তৈরি হয়ে যাবে।

[ad_2]