Press "Enter" to skip to content

সুখোই বিমান থেকে ঘাতক অ্যান্টি রেডিয়েশন মিসাইলের সফল পরীক্ষণ করল ভারত! ঘুম উড়ল চীন-পাকিস্তানের

[ad_1]

নয়া দিল্লীঃ প্রতিরক্ষা গবেষণা এবং উন্নয়ন সংগঠন (Defence Research and Development Organisation) আরও একবার ইতিহাস সৃষ্টি করল। DRDO শুক্রবার সুখোই লড়াকু বিমান থেকে অ্যান্টি রেডিয়েশন মিসাইল ‘রুদ্রম” (rudram) এর সফল পরীক্ষণ করেছে। এই মিসাইল ডিআরডিও দ্বারা তৈরি করা হয়েছে।

DRDO জানায়, ‘রুদ্রম ভারতীয় বায়ুসেনার জন্য বানানো দেশের প্রথম স্বদেশী অ্যান্টি রেডিয়েশন মিসাইল, যেটি DRDO দ্বারা বিকশিত করা হয়েছে। এই মিসাইলটিকে লঞ্চ প্ল্যাটফর্ম রুপে সুখোই এসইউ-৩০ এমকেআই লড়াকু বিমানে যুক্ত করা হয়েছে, এই মিসাইলে লঞ্চ শর্তের উপর নির্ভর করে এর বিভিন্ন পরিসীমা ক্ষমতা রয়েছে।”

https://platform.twitter.com/widgets.js

DRDO আরও জানায়, ‘এটিতে চূড়ান্ত আক্রমণের জন্য প্যাসিভ হোমিং হেড সহ আইএনএস-জিপিএস নেভিগেশন রয়েছে। রুদ্রম রেডিয়েশন লক্ষ্য পিনপয়েন্টে সটীক ভাবে আঘাত করেছে। প্যাসিভ হোমিং হেড বিস্তৃত ব্যান্ডের সাহায্যে লক্ষ্য সনাক্তকরণ, শ্রেণিবদ্ধকরণ এবং বিজড়িত করতে সক্ষম।

এটি ভারতে তৈরি প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র যা যেকোনও উচ্চতা থেকে নিক্ষেপ করা যেতে পারে। ক্ষেপণাস্ত্রটি যেকোনও ধরণের সংকেত এবং বিকিরণ ক্যাপচার করতে সক্ষম। এর সাথে সাথে ক্ষেপণাস্ত্রটিকে নিজের র‍্যাডারে এনে যেকোনও মিসাইল্কে ধ্বংস করতে পারে। ক্ষেপণাস্ত্রটি বর্তমানে উন্নয়নের পরীক্ষায় রয়েছে।

ট্রায়াল শেষ হওয়ার পরেই এই মিসাইল সুখোই এবং দেশীয় বিমান তেজাসেও ব্যবহৃত হবে। জানিয়ে দিই, সোমবার ডিআরডিও সফলভাবে সুপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র টর্পেডো (স্মার্ট) এর সফলভাবে পরীক্ষা করেছে। এটি ওড়িশার উপকূলীয় অঞ্চলে ডিআরডিও দ্বারা পরীক্ষা করা হয়েছিল।

[ad_2]