Press "Enter" to skip to content

স্কুটি গুজরাটের, ফ্লেক্সও গুজরাটের! আর বলছেন বাংলাকে বহিরাগতদের থেকে বাঁচাব! মমতাকে খোঁচা শুভেন্দুর


বীরানগরঃ ভোটে বাঙালি অস্মিতাকে কাজে লাগাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা, বিজেপির মহাসচিব কৈলাস বিজয়বর্গীয় সমেত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের বরাবর ‘বহিরাগত” তকমা দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দলের সমস্ত নেতারা। এবার সেই বহিরাগত ইস্যুতে পাল্টা খোঁচা খেল খোদ তৃণমূলই।

বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারী সোমবার তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বহিরাগত ইস্যুতে খোঁচা দেন। নদীয়ার একটি সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বলেন, ‘৫০০ কোটি টাকা দিয়ে বহিরাগতর থেকে বুদ্ধি ধার করছে। নবান্নে যেই স্কুটি চালিয়ে গিয়েছেন মাননীয়া, সেটা মোদীর গুজরাটে তৈরি। তৃণমূলের এত টাকা যে, এখন ফেস্টুন, ফ্ল্যাগ ছাপা হচ্ছে গুজরাটে।”

আরেকদিকে, আজ নবান্নে লালু পুত্র তথা বিহারের রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা তেজস্বী যাদবের সঙ্গে দেখা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু অধিকারী সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, ‘রাজ্যে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। আদর্শ আচরণবিধিও লাগু হয়ে গিয়েহে। আর এরপর তিনি নবান্নে তেজস্বী যাদবের সঙ্গে বসে মিটিং করছেন। সচিবালয় কি রাজনীতির জায়গা? উনি নিজের জন্য যা খুশি তাই করতে পারেন।”

এরপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করে শুভেন্দুবাবু বলেন, ‘দেশে যখন করোনা শুরু হয়েছিল, তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন থালা বাজান, আলো জ্বালান। তখন এই তৃণমূল আর প্রধানমন্ত্রীর বিরোধীরা ব্যাঙ্গ করেছিল। আর আজ দেখুন, দিল্লীতে বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর বিমান দাঁড়িয়ে আছে ভারতের থেকে ভ্যাকসিন নেবে বলে। প্রধানমন্ত্রী মোদী দেশটাকে কোথায় নিয়ে গিয়েছে ভাবুন।”