Press "Enter" to skip to content

হাসপাতালে নার্সদের সাথে অভদ্রতামি করছিল কট্টরপন্থী জামাতি! যোগী সরকার পাঠাল সেন্ট্রাল জেল

তাবলীগ জামাতের লোকজন পুরো দেশে ভাইরাস ছড়িয়ে দিয়েছে। ভাইরাস ছড়িয়ে দেওয়ার পরে তাদের হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। কিন্তু জামাতি কট্টরপন্থীরা সমস্ত হাসপাতালে গিয়ে উপদ্রব শুরু করেছে। কর্নাটক, দিল্লী, উত্তরাখন্ড সব জায়গায় জামাতি উন্মাদীরা নার্স ও ডাক্তারদের সাথে অসভ্যতামি করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে এখন উত্তরপ্রদেশ থেকে একটা খবর সামনে আসছে যা মানুষকে একটু হলেও স্বস্তি দেবে।

আসলে দেশের প্রত্যেক প্রান্তে উন্মাদীরা সেকুলারিজমের নামে ছাড়া পায়। তবে যোগী সরকার একমাত্র এমন প্রশাসন যেখানে অপরাধীদের কোনো ছাড় নেই। এখন উত্তরপ্রদেশ থেকে একটা বড় খবর সামনে আছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, এক উন্মাদী বারাণসীর এক হাসপাতালে নার্সের সাথে খারাপ ব্যাবহার করায় তাকে জেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। দীন দয়াল হাসপাতালে উন্মাদ ছাড়ানোর পর এক কট্টরপন্থীকে সেন্ট্রাল জেলে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতালের মধ্যে ধার্মিক কার্যকলাপ করার জন্যেও ওই যুবক উপদ্রব করছিল বলে জানা গেছে।

এর আগে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ডাক্তার ও নার্সদের সাথে খারাপ ব্যাবহার, মুখে থুতু দেওয়া, প্যান্ট খুলে নাচানাচির খবর শোনা যাচ্ছিল। সেক্ষেত্রে প্রশাসনের তেমন কড়া পতিক্রিয়া দেখা মেলেনি। তবে এখন বারাণসী থেকে যে খবর আসছে তা নিঃসন্দেহে প্রশাসনিক দিক থেকে ইতিবাচক খবর। যে যুবককে যোগী প্রশাসন জেলে পাঠিয়েছে তার বিরুদ্ধে নার্সদের সাথে অভদ্রতামি করার অভিযোগ রয়েছে।

একইসাথে ওই যুবক হাসপাতালের মধ্যে অব্যাবস্থা উৎপন্ন করছিল বলেও প্রশাসন জানিয়েছে। জানিয়ে দি, কট্টরপন্থীদের কারণে পুরো দেশজুড়ে ভাইরাস ও আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। আর এখন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করা আসল যোদ্ধা ডাক্তার ও নার্সদেরও হেনস্থা করতে শুরু করেছে উন্মাদীরা। যার বিরুদ্ধে দেশের জনগণ কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার জোর দাবি তুলেছে।