Press "Enter" to skip to content

হিজাব পরে ক্লাসে আসছিল মুসলিম ছাত্রীরা, বিরোধিতায় বড় পদক্ষেপ নিল ছাত্ররা

[ad_1]

চিকমাগালুরুঃ কর্ণাটকের চিকমাগালুর জেলার কলেজে মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব পরা নিয়ে আবহাওয়া গরম হয়ে উঠেছে এবং বিতর্ক ক্রমাগত বেড়েই চলেছে। যখন একদল ছাত্র গেরুয়া রঙের স্কার্ফ পরে ক্লাসে হিজাব পরে আসা মুসলিম মেয়েদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু করে। তখন, কর্ণাটকের কোপায় সরকারি কলেজের ম্যানেজমেন্টের সামনে এক অদ্ভুত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

চিকমাগালুরু জেলার বালাগাদির সরকারি ডিগ্রি কলেজ প্রাথমিকভাবে ছাত্রদের গেরুয়া স্কার্ফ পরে ক্লাসে যোগ দেওয়ার অনুমতি দিয়েছিল এবং মেয়েদের হিজাব পরে আসতে না বলেছিল, কিন্তু এখন ১০ ​​জানুয়ারি পর্যন্ত সকলকে তাঁর ইচ্ছামত যা কিছু পরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

কলেজের অধ্যক্ষ অনন্ত মূর্তি বলেন, “আমরা ১০ জানুয়ারি একটি অভিভাবক-শিক্ষক মিটিং করছি, সেখানে জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত থাকবেন। এ বিষয়ে গৃহীত সিদ্ধান্ত সকল শিক্ষার্থীকে মেনে নিতে হবে।” তিনি বলেন, তিন বছর আগে একই ধরনের একটি সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল এবং এখনও পর্যন্ত সবাই তা অনুসরণ করছে। অনন্ত মূর্তি বলেন, ‘সবকিছু ঠিকঠাক চলছিল, কিন্তু সোমবার হঠাৎ করে কয়েকজন ছাত্র গেরুয়া স্কার্ফ পরে ক্লাসে আসে। তাঁরা কিছু ছাত্রীর হিজাব নিয়ে আপত্তি জানায়।”

B.Com দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র বিনয় কোপ্পা অভিযোগ করেছেন যে, মুসলিম মেয়েরা হিজাব পরে কলেজে আসছে। বিনয় জানান, “তিন বছর আগেও কলেজে একই ধরনের বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিল এবং সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল যে কেউ হিজাব পরে আসবে না, কিন্তু গত কয়েকদিন থেকে কিছু মেয়ে হিজাব পরে কলেজে আসছে। তাই আমরাও গেরুয়া স্কার্ফ পরে কলেজে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

ছাত্রের দাবি, তাঁর অনুরোধে কলেজ প্রশাসন বহুবার মুসলিম ছাত্রীদের হিজাব না পরার জন্য অনুরোধ করলেও তাঁরা রাজি হয়নি। এ সমস্যার সমাধান না হলে আগামী দিনে প্রতিবাদ আরও তীব্র হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

[ad_2]