Press "Enter" to skip to content

হিন্দু দেবদেবী নিয়ে বিতর্কিত ট্যুইট ইমরান খানের সাংসদের, চাপে পড়ে ডিলিট করলেন পোস্ট


নয়া দিল্লীঃ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দলের সাংসদ চাপে পড়ে সংখ্যালঘু হিন্দুদের প্রতি অসন্মান প্রকট করা নিজের ট্যুইট ডিলিট করেছেন। এছাড়াও তিনি নিজের কাজের জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। জানিয়ে দিই, পাকিস্তানের তেহরিক-এ-ইনসাফ দলের ন্যাশানাল অ্যাসেম্বলির সদস্য আমির লিয়াকত হুসেইন বিরোধী নেতা এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে অপদস্ত করার জন্য হিন্দু দেবীর ছবি ট্যুইট করে বিতর্ক সৃষ্টি করেন।

আমির লিয়াকত হুসেন হলেন একটি সুপরিচিত টিভি উপস্থাপক এবং একজন বিখ্যাত ধর্মীয় পণ্ডিত হিসাবে পরিচিত। কিন্তু তিনি নিজের বিতর্কিত সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট দ্বারা হিন্দু সম্প্রদায়, সুশীল সমাজ এবং রাজনীতিবিদদের নিশানায় চলে আসেন। সিন্ধ প্রান্তের থারপার্কার এলাকার থেকে ইমরান খানের দলের প্রতিনিধি রমেশ কুমার বাঙ্কবানি আমির হুসেইনের ট্যুইটের নিন্দা করেন এবং ওনাকে হিন্দুদের কাছে ক্ষমা চাইতে বলেন।

পাকিস্তান হিন্দু কাউন্সিলের সভাপতি রমেশ কুমার ট্যুইট করে লেখেন, ‘নিজেকে ধার্মিক মামলায় বিদ্যান হওয়ার দাবি করা ব্যক্তির লজ্জাজনক কাজের কড়া নিন্দা করছি আমি। উনি অন্য ধর্মের সন্মান করতে জানেন না।” রমেশ কুমার আরও লেখেন, ‘ওনার ওই বিতর্কিত ট্যুইট যদি তাড়াতাড়ি না হটানো হয়, তাহলে আমরা ঈর্ষানিন্দার আইনের মাধ্যমে ওনার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি করে গোটা দেশে বিক্ষোভ প্রদর্শন করব।”

এরপর চাপে পড়ে আমির লিয়াকত হুসেইন নিজের ট্যুইট ডিলিট করে হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘আমি জানি যে হিন্দুদের ধর্মীয় ভাবাঘেতে আঘাত হেনেছি। আমি সব ধর্মের সন্মান করি। আমার ধর্ম সব ধর্মকেই সন্মান করতে শেখায়।”