Press "Enter" to skip to content

১৮ বছর বয়সে মেয়েরা সহবাস করতে পারলে বিয়ে কেন করতে পারবে না! মোদীকে আক্রমণ ওয়াইসির

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই ইত্তেহাদুল মুসলিমিন-র (All India Majlis-e-Ittehadul Muslimeen) প্রধান তথা হায়দ্রাবাদের সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়াইসি (Asaduddin Owaisi) শুক্রবার মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার কেন্দ্রের প্রস্তাবের বিরুদ্ধে মুখর হয়ে ওঠেন। ওয়াইসি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) মহল্লার চাচার মতো, যিনি সবসময় আমাদের উপদেশ দেন কাকে কখন বিয়ে করতে হবে, আমরা কোন ভগবানের পুজো করব। বলে দিই, বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীমণ্ডল মেয়েদের বিয়ের নুন্যতম বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার প্রস্তাবে সিলমোহর দিয়েছিল। বর্তমানে ছেলেদের বিয়ের নুন্যতম বয়স ২১ আর মেয়েদের ১৮ রয়েছে।

ওয়াইসি বলেন, মোদী সরকার মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮ থেকে বাড়িয়ে ২১ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটিই পিতৃতন্ত্র যা আমরা সরকারের কাছ থেকে আশা করতে পারি। ১৮ বছরের পুরুষ আর মহিলারা কন্ট্রাক্ট সাইন করতে পারে, ব্যবসা শুরু করতে পারে, প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করতে পারে আর বিধায়কও বেছে নিতে পারে, কিন্তু বিয়ে করতে পারে না?

ওয়াইসি বলেন, তাঁরা যৌন সম্পর্ক আর লিভ-ইন রিলেশনের জন্য সহমতি দিতে পারে, কিন্তু নিজের জীবন সঙ্গী বেছে নিতে পারে না। ওয়াইসি বলেন, পুরুষ আর মহিলা দুই পক্ষকেই ১৮ বছর বয়সে বিয়ের অনুমতি দেওয়া উচিৎ। কারণ এই বয়সেই তাঁদের আইনি ভাবে প্রাপ্ত বয়স্ক মানা হয়ে থাকে।

ওয়াইসি বলেন, আইনের পরেও অনেক বিয়ে হচ্ছে। ভারতে প্রতি চতুর্থ মহিলার বিয়ে ১৮ বছর বয়সের আগেই হয়ে যায়। কিন্তু বাল্য বিবাহ নিয়ে মাত্র ৭৮৫টি মামলা দায়ের রয়েছে। যদি বাল্য বিবাহ আগের থেকে কম হয়ে থাকে, তাহলে সেটা আর্থিক প্রগতি আর শিক্ষার প্রগতির কারণে হয়েছে, না কী আইনের কারণে। উনি বলেন, এই দেশে ১ কোটির উপর এমন মেয়ে রয়েছে যাদের বিয়ে ১০ বছর বা তাঁরও আগে হয়ে গিয়েছে। এদের মধ্যে ৮৪ শতাংশ হিন্দু ফ্যামিলির মেয়ে। মাত্র ১১ শতাংশই মুসলিম সমাজের।

[ad_2]