Press "Enter" to skip to content

৪০০ টাকার টিকা হাসপাতালকে ১০৬০ আর জনতাকে ১৫৬০ টাকায় বিকোচ্ছে কংগ্রেস সরকার

নয়া দিল্লীঃ করোনার (covid-19) দ্বিতীয় ঢেউয়ে বর্তমানে ভ্যাকসিন (vaccine) নিয়ে সংকট দেখা দিয়েছে গোটা দেশে। বিভিন্ন দেশ ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেও, এরই মধ্যে এক বড় অভিযোগ আনলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (anurag thakur)। তাঁর দাবি, এই সংকটের দিনেও দুই রাজ্য কেন্দ্রের থেকে কম দামে টিকা কিনে, রাজ্যবাসীর কাছে চড়া দামে তা বিক্রি করছে। দুই কংগ্রেস শাসিত রাজ্যে টিকা নিয়ে কালোবাজারির অভিযোগ তুললেন তিনি।

করোনার প্রথম পর্ব পার করে দ্বিতীয় পর্বে প্রথম থেকেই চিকিৎসা সংক্রান্ত নানা সমস্যা দেখা দিয়েছিল। তবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে কিছুটা স্থিতি এলেও, বর্তমানে ভ্যাকসিন আকাল দেখা দিয়েছে গোটা দেশেই। ভ্যাকসিন যখন অপরিহার্য হয়ে দাঁড়িয়েছে, সেই সময় ভ্যাকসিন সংকট দেখা দেওয়ায় বিরোধী নানা মন্তব্য করতেও ছাড়ছে না বিরোধীরা।

তবে এরই মধ্যে ভ্যাকসিন ইস্যুতে এক বিস্ফোরক দাবি করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। কংগ্রেস সরকারের বিরুদ্ধে টিকা দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ‘বিনামূল্যে দেওয়ার বদলে, জনগণকে ৩১২০ টাকার বিনিময়ে টিকা দেওয়া হচ্ছে। কংগ্রেসের বরাবরের নীতিই হচ্ছে ওয়ান টু কা ফোর। টিকা নিয়ে কালবাজারি চলছে পাঞ্জাব এবং ে’।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তিনি আরও বলেন, ‘টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থার থেকে ভ্যাকসিন কিনে, তা ৪০০ টাকায় রাজ্যকে বিক্রি করছে। কিন্তু এই সংকটের মধ্যেও পাঞ্জাব সরকার সেই ৪০০ টাকার ভ্যাকসিন ১,০৬০ টাকায় বিক্রি করছে বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে। আর সেখান থেকে সাধারণ মানুষদের তা ১,৫৬০ টাকার বিনিময়ে কিনে নিতে হচ্ছে’।