Press "Enter" to skip to content

৬ মাসে রেকর্ড সংখক চাকরি দিয়ে নতুন ইতিহাস গড়লো মোদী সরকার।

মোদী সরকারের অনবরত প্রচেষ্টার ফল এবার সামনে আসতে শুরু করেছে। সম্প্রতি, দেশে মোদী সরকার কি পরিমান চাকরি দিতে পেরেছে তার একটা রিপোর্ট বেরিয়ে এসেছে। আপনাদের জানিয়ে রাখি এই রিপোর্ট এর তথ্য জানার তথাকথিত সেকুলার, মোদী বিরোধী, হিন্দু বিরোধীদের মুখে লাগাম পড়তে বাধ্য।

আসলে EPFO একটা বিগত ৬ মাসের একটা রিপোর্ট তৈরী করেছে। এই রিপোর্টে দেখানো হয়েছে বিগত ৬ মাসে ভারতে কত জন চাকুরী পেয়েছে এবং তাদের বয়স কত। EPFO জানিয়েছে সেপ্টম্বর ২০১৭ থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৮ পৰ্যন্ত ভারতে ৩৪ লক্ষ চাকরি সৃষ্টি হয়েছে যা ভারতের ইতিহাসে আগে কখনো ঘটেনি। শুধু তাই নয় এই চাকরি শুধু মাত্র ২২ থেকে ২৮ বছরের যুবকযুবতীরা পেয়েছে।

এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট ফান্ড অর্গানাইজেসন জানিয়েছে এই চাকরির প্রত্যেকের বেতন ১৫০০০ বা তার অধিক। ১৫,০০০ এর নিচে থাকা চাকরিজীবদের এই রিপোর্টে ধরা হয়নি।অর্থাৎ যাদের সর্বনিন্ম বেতন ১৫,০০০ টাকা তাদেরকেই এই রিপোর্টে ধরা হয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে ভারত এইভাবে চাকরির সংখ্যা ধরে রাখতে পারলে ভারত বেকার মুক্ত দেশে পরিণত হবে তবে ভারতকে তার জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের উপর জোর দিতে হবে। মোদী সরকার চাকরীর সংখ্যা বাড়ালেও জনসংখ্যাকে পাল্লা দিয়ে চাকরি দেওয়া পরবর্তীকালে কঠিন হয়ে উঠবে তাই যত তাড়াতড়ি সম্ভব জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ আইন প্রয়োগ করে দেশকে একটা মাপকাঠির মধ্যে দিয়ে নিয়ে যাওয়া উচিত।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.