Press "Enter" to skip to content

রুশ থেকে ভারতের সভ্যতা সম্পর্কে জানতে এসেছিল ১৩ জন ইহুদি! প্রভাবিত হয়ে সনাতন হিন্দু ধর্ম গ্রহন করলো প্রত্যেকে।

পুরো বিশ্বে অনেক ধৰ্ম রয়েছে কিন্তু সনাতন হিন্দু ধর্ম সবথেকে প্রাচীন। বিশ্বের প্রত্যেক ধৰ্ম মানব নির্মিত মত কিন্তু হিন্দু ধৰ্ম বৈদিক ধর্ম। কোনো একটা ব্যাক্তির মতে এই ধর্মের সৃষ্টি হয়নি। হিন্দুস্তানে(ভারত) ভ্রমণে আসা রুশের ১৩ জন ইহুদি নাগরিকের হিন্দুস্তানের সংস্কৃতি, হিন্দুস্তানের সভ্যতা তথা সভ্য সনাতন হিন্দু ধর্মকে এতটাই ভালো লেগেছে যে তারা এই সনাতনকে গ্রহণ করে নিয়েছেন । এই ১৩ জন ইহুদি হরিয়ানার ভিবানীর জহরগিরী মন্দিরে গেরুয়া চড়িয়ে দীক্ষা নেয় এবং হিন্দু ধর্মকে গ্রহণ করে।রুশের ১৩ জন ইহুদি এটাও জানায় যে তারা হিন্দু সংস্কারে প্রসন্নিত হয়ে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছেন।এবং তারা জানায় যে তারা দেশে ফিরে ভগবান ভোলানাথের মন্দির বানাবে এননং “হিন্দু ধর্ম ও সংস্কৃতির প্রচার করবে”।

হিন্দুধর্ম গ্রহণকারী এই ১৩ জন রুশ ইহুদিদের মধ্যে ৭ জন ছিল মহিলা ও ৬ জন ছিল পুরুষ।
জহরগিরী মন্দিরের মহান্ত অশোর গিরী জানায় এই রুশ ইহুদীরা অনেকদিন ধরে ভারতে আসছে এবং এনারা আমাদের ভারতের প্রায় সব ধাম ভ্রমণ করেছেন এবং সংস্কৃতির বাসুদেব কুট্টুভকম ব্য শান্তির সন্দেশে প্রভাবিত হয়ে হিন্দুধর্ম গ্রহণ করেন।এনারা বলেছেন নিজেদের দেশে গিয়ে মন্দির বানাবে এবং হিন্দুধর্মের প্রচার করবে।


এই ১৩ জন রাশিয়ানরা ইহুদি থেকে হিন্দু হওয়ার পর এনারা জানায় তারা পাঁচ-ছয় বছর আগে প্রথম ভারতে আসে ও তখন গরমের মৌসুম চলছিল, প্রথমদিকে তাদের সবকিছু খুব অদ্ভুত লাগতো কিন্তু তারপর অনেকবার আসা যাওয়ার পর এখানকার মৌসুমের সঙ্গে তারা মানিয়ে নেয়।ইহুদিরা জানায় তারা এখানকার সংস্কৃতি ও ধর্মকে জানার পর খুব প্রভাবিত হয় এবং অনেক ধাম বা মন্দির ভ্রমণ করার পর হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নেয়।

এই ইহুদিদের বক্তব্য হিন্দু ধর্ম ও সংস্কৃতি শুধু বলার জন্যই নয় বাস্তবেও পুরো দুনিয়াতে সবচেয়ে ভালো। এবং তাঁরা জানান রাশিয়াতে গিয়ে হিন্দুধর্মের প্রচার করবেন। রাশিয়ার এই ব্যাক্তির বলেন হিন্দু ধর্ম কাউকে জোর করে না, কিছু মানতে বাধ্য করে না।