Press "Enter" to skip to content

মানবিক পুলিশ! এক মায়ের কাতর আবদনে সাড়া দিয়ে রাজস্থান থেকে ট্রেনে করে দুধ আনালেন পুলিশ আধিকারিক

মুম্বা করোনা ভাইরাসের () সংক্রমণের কারণে গোটা দেশে লকডাউন (Lockdown) জারি আছে। স্থানীয় প্রশাসন আর পুলিশ বিভাগের কর্মীরা মানুষের সাহায্যের জন্য সবসময় এগিয়ে আসছে। আর এরই মধ্যে পুলিশের () এক মানবিক রুপ সামনে এসেছে। এক মহিলা তাঁর অসুস্থ বাচ্চার জন্য কাতর আবেদন করেছিল, আর পুলিশ ওই মহিলাকে ২০ লিটার উটনির দুধ (Camel Milk) উপলব্ধ করিয়েছে।

উল্লেখ্য, এই ঘটনা মুম্বাইয়ের। সেখানে চেম্বুরের এক মহিলা ট্যুইটারে সাহায্য চায়। উনি লেখেন, ওনার সাড়ে তিন বছরের বাচ্চা অটিজম (Autism) অ্যালার্জিতে আক্রান্ত। সে শুধু উটনির দুধ আর ডাল খেয়ে জীবিত আছে, লকডাউনের কারণে উটনির দুধ পাওয়া অসম্ভব হয়ে গেছে। মহিলা লেখেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে দুধ শেষ হয়ে যাবে, আর তাঁর ওই দুধ ছাড়া বাঁচতে পারবে না। ওই মহিলা এও লেখেন যে, ওই দুধ রাজস্থানে পাওয়া যাবে।

এক মায়ের কাতর আবেদন করা ট্যুইট ভাইরাল হয়ে যায়। সবাই সেখানে গিয়ে প্রতিক্রিয়া দেওয়া শুরু করে। এরপর আইপিএস অরুণ বোথরা (Arun Bothra) ওনার ট্যুইটের জবাব দেন। রাজস্থানের এক আইপিএস মহিলা অফিসারের সাথে াযোগ করেন তিনি। অরুণ রাজস্থানের কয়েকজন রেলওয়ে অফিসারকে এই ব্যাপারে জানান। এরপর ওই মহিলার কাছে দুধ পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হয়।

আইপিএস অরুণ বোথরা ওই বিষয়ে ট্যুইট করে জানান, আজমেরের সিনিয়র ডিসিএম মহেশ চন্দ জুরালিয়ার সাথে এই বিষয়ে কথা হয়েছে। লুধিয়ানা আর বান্দ্রার মধ্যে চলা পার্স কার্গো ট্রেন ০০৯০২ কে রাজস্থানের ফালনা স্টেশনে থামান হবে, আর সেখান থেকে দুধ উঠিয়ে মুম্বাইয়ের ওই মহিলার কাছে পাঠানো হবে।

এরপর নর্থইস্ট রেলওয়ের চীফ প্যাসেঞ্জার ট্র্যাফিক ম্যানেজার তরুন জৈন আজমের থেকে অফিসারদের উটনির দুধ বন্দোবস্ত করার কথা বলেন, আধিকারিকরা উটনির দুধের ব্যবস্থা করেন। লুধিয়ানা থেকে বান্দ্রা যাওয়া পার্সেল ট্রেন ফালনা স্টেশনে পৌঁছায়, সেখান থেকে ২০ লিটার উটনির দুধ ট্রেনে তোলা হয় আর তারপর ট্রেন মুম্বাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

মুম্বাই পৌঁছাতেই আধিকারিকদের কাছে অনুমতি নেওয়ার পর ট্রেন থামান হয় আর দুধ বান্দ্রার ওই মহিলার কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়। অরুণ বোথরা পরে জানিয়ে দেন যে, ট্রেনে করে ২০ লিটার দুধ মুম্বাই পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। বোথরা এর জন্য ভারতীয় রেলকে ধন্যবাদ জানান।