Press "Enter" to skip to content

টাকার লোভে খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করেছিল ২০০ দলিত পরিবার! ভুল বুঝতে পেরে হিন্দু ধর্মে ফিরে এলো সমস্থ পরিবার।

ভারতে বহু সময় ধরে হিন্দুদের একটা বড় বর্গ যারা গরিব ও পিছিয়ে পড়া জনজাতি ছিল তাদের লোভ, প্রলোভন দেখিয়ে অন্য ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। কিছুজনকে ডাল,চালের লোভ দেখিয়ে,কিছুজনকে টাকার লোভ দেখিয়ে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। আর যারা লোভ করেনি তাদের অনেককে ভয় দেখিয়ে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে। আজ ভারতের ৯ টি রাজ্যে সংখ্যালঘু সমাজে পরিণত হয়েছে এবং কিছু এমন রাজ্য রয়েছে যেখানে সমাজ সংখ্যা লঘু হওয়ার পথে দাঁড়িয়ে রয়েছে। ধর্ম পরিবর্তনের এই কালো ধান্দা ভারতে কংগ্রেস সরকারের অবদান। কংগ্রেস ভারতে ক্ষমতায় আসার পর থেকে জসওয়া প্রজেক্ট চালু করেছিল। এই জসওয়া প্রজেক্টের মাধ্যমে বহু হিন্দুকে ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়েছে।

NGO দের আড়ালে এই প্রজেক্ট বিদেশি ফান্ডিং নিয়ে ভারতে ধর্ম পরিবর্তনের কালো ধান্দা চালায়। ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় এলে জসওয়া প্রজেক্টের উপর লাগাম লাগানোর কাজ শুরু হয়। ক্ষমতায় এসেই মোদী ১৪,০০০ NGO এর লাইসেন্স বাতিল করে দেয়। হিন্দুদের ধর্মপরিবর্তন আটকানোর জন্য বিদেশি ফান্ডিং নিয়ে দালালি করা ব্যাক্তিদের কোমর ভাঙতে শুরু করেছিল মোদী সরকার। খ্রিস্টান ধর্মে কনভার্ট হওয়া এই হিন্দুদের নিয়ে এখন একটা বড় খবর সামনে আসছে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, ২০০ দলিত পরিবার যারা বিদেশিদের পোষা দালালদের কথায় ভ্রমিত হয়ে ধর্ম পরিবর্তন করেছিল তারা পুনরায় সনাতন হিন্দু ধর্মে ফিরে এসেছে। ২০০ হিন্দু দলিত পরিবার যারা খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহন করে নিয়েছিল তাদের ঘরে ফেরানো হয়েছে তথা সনাতন হিন্দু ধমে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। স্বামী নারায়ণ জ্ঞানপীঠ নামক এক সনাতন হিন্দু ধর্মের সংস্থা এই কার্য সম্পন্ন করেছে। এই সংস্থা দ্বারা গুজরাটের ভালসাড গ্রামে হিন্দু ধর্ম জাগরণ সম্মেলন এর আয়োজন করা হয়েছিল। এই সম্মেলনের মুখ্য আয়োজক স্বামী কপিল মহাশয় ছিলেন।

স্বামী কপিল মহাশয় বলেছেন প্রায় ২০০ পরিবার থেকে সম্পর্কিত ৭০০ জনকে খ্রিস্টান ধর্ম থেকে হিন্দু ধর্মে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। প্রত্যেকজনকে নিজের নিজের বাড়িতে স্থাপিত করা হেতু ভগবান হনুমানের মূর্তি দেওয়া হয়েছে। স্বামী কপিল মহাশয় জানিয়েছেন, খ্রিস্টান মিশনারিদের দ্বারা একটা আদিবাসী গ্রামকে পুরোপুরিভাবে খ্রিস্টান ধর্মে পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে। এখন সেই গ্রামবাসীকে পুনরায় হিন্দু ধর্মে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। যা খুব চ্যালেন্জিং বলে জানিয়েছেন স্বামী কপিল মহাশয়।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.