Press "Enter" to skip to content

তোষণ নয় উন্নয়ন চাই! তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন শতাধিক মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ।

রাজ্যের শাসক দল যেভাবে দিনের পর দিন মুসলিম তোষন করছে। তাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে রাজ্যের অন্য সম্প্রদায়ভুক্ত মানুষজন। তাই শাসক দলের এই অত্যাচার এবং তোষন সহ্য করতে না পেরে এবার তৃনমূল ছেড়ে বিজেপির দিকে মুখ ঘোরাচ্ছেন রাজ্যের মানুষ। এবার তারা রাজ্যের উন্নয়ন এবং নিজেদের অস্থিত্বের কথা চিন্তা করে, নিজেদের ভবিষ্যৎ এর কথা ভেবে একে একে পা বাড়াচ্ছেন বিজেপির পথে। তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করার প্রবণতা ব্যাপক আকার ধারন করেছে আমাদের রাজ্যে। একতরফা তোষণের ফলে যে হিন্দু মুসলিমের সমাজের মধ্যে দূরত্ব বাড়ছে তা ভালোমতো বুঝতে পেরে তৃণমূল ছেড়ে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে বেশকিছু সংখ্যালঘুরা। মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের বক্তব্য আর তোষণ নয়, এবার উন্নয়ন চাই।

এবার প্রায় ৪০০ জন কর্মী একসাথে শাসক দলের তোষণ নীতি সহ্য করতে না পেরে যোগদান করলেন বিজেপিতে। স্বরূপ নগরের তেঁতুলিয়া এলাকা যেটা উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় অন্তর্গত সেখানকার স্কুল মাঠে সোমবার একটি জনসভার আয়োজন করা হয়েছিল বিজেপির SC মোর্চার তরফে। ইনি হলেন সেই আইনজীবী যিনি সুপ্রিম কোর্টে তিন তালাকের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন, তিনি এইদিন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। গনেশ ঘোষ যিনি বসিরহাট বিজেপি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি, বিজেপির জাতীয় নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এস সি মোর্চার সভাপতি মাননীয় সমরেন্দ্রনাথ মণ্ডল সহ বেশ কিছু নেতাকর্মী এই দিনের এই জনসভায় উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রাপ্ত খবর যা পাওয়া গেছে, এইদিনের এই সভায় বিশিষ্ট অতিথিদের উপস্থিতিতে সেই ৪০০ জন কর্মী তৃণমূল এবং সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। সেই অনুষ্ঠানেই তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেওয়া হয় সকলের উপস্থিতিতে। এছাড়া আরও একটি খবর পাওয়া গেছে সেই কর্মীদের মধ্যে প্রায় শতাধিক সংখ্যালঘু কর্মীও ছিল যারা সেই দিন বিজেপিতে যোগদান করেছেন।

বিজেপির উত্তর চব্বিশ পরগনার বিজেপি নেতৃত্ব জানিয়েছেন যে, যোগ দেওয়া সকল কর্মী শাসক দলের অত্যাচার থেকে বাঁচার জন্যই বিজেপিতে যোগদান করলেন। তারা এটাও জানিয়েছেন যে, এই যোগদানের ফলে এই এলাকায় বিজেপির সাংগঠনিক শক্তি অনেকটা বৃদ্ধি পেল।
#অগ্নিপুত্র