কংগ্রেস আসতেই মধ্যপ্রদেশে শুরু হল জঙ্গল রাজ, দিনে দুপুরে স্কুল বাসে বন্দুক দেখিয়ে ব্যাবসায়ির ছেলেকে করা হল অপহরণ

একটি প্রচলিত কথা আছে, কোন জিনিষ বানাতে যতই সময় লাগুক না কেন। সেটাকে নিমিষের মধ্যেই ভাঙা যায়। মধ্যপ্রদেশ এক কালে রোগ গ্রস্ত রাজ্যে পরিণত হয়েছিল। তারপর বিজেপি ক্ষমতায় এলো আর শিবরাজ সিং চৌহান পরপর তিনবার এখানে শাসন করল।

শিবরাজ সিং চৌহানের তিনবার শাসন করার ফল হিসবে, মধ্যপ্রদেশ প্রতিদিন উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল। একদিকে সিমি জঙ্গি সংগঠনের যেমন কোমর ভেঙে দিয়েছিল শিবরাজ সরকার। তেমনই রাজ্যে অপরাধের মাত্রা কমিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু সেগুলো এখন সব অতীত!

মধ্যপদেশের জনতাদের প্রলোভন দেখিয়ে কংগ্রেস ক্ষমতায় এলো। আর রাজ্যে জঙ্গলরাজ কায়েক করা শুরু করল। ২৬শে জানুয়ারি গণতন্ত্র দিবসে বন্দে মাতরম গাওয়ার জন্য এক নির্দিষ্ট সম্প্রদায়ের মানুষ ওই বাচ্চাদের উপর হামলা করে দেয়। আরেকদিকে লালু প্রসাদের দেখানো রাস্তায় পা ফেলে কমলনাথ সরকার এখন রাজ্যে জঙ্গল রাজ কায়েম করতে চাইছে।

গতকাল এক স্কুল বাচ্চা ভর্তি বাসে কিছু দুষ্কৃতী উঠে সর্বসমক্ষে বন্দুক দেখিয়ে এক ব্যাবসায়ির ছেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। ব্যাবসায়ির ওই সন্তান তাঁর বন্ধুদের সাথে স্কুল বাসে করে স্কুলে যাচ্ছিল, আর সেই সময় কিছু দুষ্কৃতী মুখ বেধে এসে বন্দুক দেখিয়ে বাস থেকে বাচ্চাটিকে তুলে নিয়ে যায়।

এখনো পর্যন্ত ওই বাচ্চাটির কোন খবর পাওয়া যায়নি। কিন্তু যার সন্তান, তাঁর উপর দিয়ে যে কি বয়ে যাচ্ছে সেটা বলে বোঝানো যাবেনা। মধ্যপ্রদেশে এখন এরকম অপরাধ দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। মধ্যপ্রদেশ সেই ১৫ বছর আগের মত অবস্থায় ফিরে আসছে।

মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পরেই তিন বিজেপি নেতা কর্মী আর এক আরএসএস কর্মীকে নৃশংস ভাবে হত্যা করা হয়। শুধু তাই নয়, কৃষি ঋণ মুকুবের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসা কংগ্রেস দল। ক্ষমতায় এসে কৃষি ঋণ মুকুব নিয়ে ২০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি করে বসে!

 

Leave a Reply

you're currently offline

Open

Close