Press "Enter" to skip to content

আমির, শাহরুখ সমেত বলিউডের বড়বড় নক্ষত্ররা পৌঁছালেন প্রধানমন্ত্রীর আবাসে, করলেন অগাধ প্রশংসা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মহত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে শিল্পি আর সিনেমার নক্ষত্রদের সাথে নিজের আবাসে সাক্ষাৎ করেন। এই বিশেষ অনুষ্ঠানে আমির খান, শাহরুখ খান, কঙ্গনা রানাওয়াত সমেত অনেক বলিউড সেলেবদের দেখা যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমির, শাহরুখ আর কঙ্গনার একটি ভিডিও সামনে আসে। এই অনুষ্ঠানের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর অফিসিয়াল অ্যাকাউন্ট থেকে তথ্য শেয়ার করা হয়।

এই বিশেষ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মহত্মা গান্ধীর বিচারধারাকে তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘মহত্মা গান্ধীর বিচারধারা গুলো প্রচার করার জন্য টিভি এবং সিনেমার সমস্ত নক্ষত্ররা খুব সুন্দর কাজ করছেন। আপনাদের সবাইকে স্ট্যাচু অফ ইউনিটিতে যাওয়ার আবেদন করছি, সেখানে গোটা বিশ্বের মানুষ আসে।” প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সমস্ত নক্ষত্রদের ডান্ডিতে গান্ধী মিউজিয়াম ঘুরে দেখার জন্য আবেদন করেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় পিএমও ইন্ডিয়ার তরফ থেকে কিছু ভিডিও শেয়ার করা হয়। ভিডিওতে আমির, শাহরুখ ছাড়াও কঙ্গনা রানাওয়াতকে দেখা যায়। শাহরুখ আর আমির দুই বলিউড অভিনেতা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। আমির খান বলেন, ‘মহত্মা গান্ধীর বিচারধারা গুলোকে প্রচারে আনার জন্য নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা যেহেতু সিনেমার অংশ, আর ক্রিয়েটিভও তাই আমরা অনেক কিছু করতে পারি। আমি মোদীজিকে ভরসা দিচ্ছি যে, আমরা এই নিয়ে কিছু করার চেষ্টা করব।”

শাহরুখ খান বলেন, ‘মহত্মা গান্ধীর বিচারধার গুলোকে নিয়ে আমদের সবাইকে এক মঞ্চে আনার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানাই। আমার মনে হয়, আমাদের গান্ধীজির বিচারধারা গুলোকে আবারও নতুন করে বিশ্বের সামনে তুলে ধরি।” একদিকে যেমন শাহরুখ খান আর আমির খান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করেন, তেমনই আরেকদিকে কঙ্গনাও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রশংসা করেন। কঙ্গনা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই প্রথম পিএম যিনি সিনেমা জগতকে এত মহত্ব দিয়েছেন।”

এই অবসরে ছোট পর্দার স্টার কপিল শর্মাও উপস্থিত ছিলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে একটি ছবি নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেন। কপিল ওই ছবি শেয়ার করে ক্যাপশন দেন, ‘আদরণীয় প্রধানমন্ত্রী জি, আপনার সাথে সাক্ষাৎ করে আমার খুব ভালো লেগেছে। আপনার নেতৃত্বে আমাদের দেশ উন্নতির শিখরে পৌঁছাচ্ছে, আপনি এইভাবেই আমাদের রাস্তা দেখিয়ে যান এটাই ইশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি। জয় হিন্দ।”