Press "Enter" to skip to content

“আমরা আইন কানুন অনুযায়ী চলবো না, আমরা শুধু শরিয়া, কোরান মেনে চলবো”: আবু আজমি, সমাজবাদী পার্টি।

মোদী সরকার লোকসভায় বিল পাশ করিয়ে দিয়েছে। নিয়ে লাগাতার লড়াই চলার পর লোকসভায় বিল পাশ করাতে সক্ষম হয়েছে মোদী সরকার। লোকসভায় কুপ্রথা ের বিরুদ্ধে বিল পাস হওয়ার আগেই সুপ্রিম কোর্ট ব্যান করে দিয়েছিল। সুন্নী মুসলিম সমাজে থাকা একটা বর্বর কুপ্রথা যার দ্বারা মুসলিম মহিলাদের শোষণ করা হয়। এমনকি এই ের উপর ভিত্তি করে সুন্নী মুসলিম সমাজে হালালার মতো আরো কুপ্রথা সৃষ্টি হয়েছে। এই কুপ্রথার জন্য মুসলিম সমাজে নারীদের অবস্থা অনেক সময় শোচনীয় হয়ে পড়ে। এই কারণে সুপ্রিম কোর্ট এই কুপ্রথাকে আগে ব্যান করেছে এবং এখন মোদী সরকার লোকসভায় বিল পাশ করিয়েছে। কিন্ত এখন মোদী সরকারের পদক্ষেপের পর দেশের কট্টরপন্থীরা বিরোধ পদর্শন করতে শুরু করে দিয়েছে। যা নিয়ে দেশের মেইন স্ট্রিম মিডিয়া কোনো খবর পরিবেশন করতে রাজি নয়।

দেশের বেশকিছু মুসলিম নেতা, মুসলিম সংগঠন দেশের আইন ও সংবিধানের বিরুদ্ধে সামনে এসে দাঁড়িয়েছে। কসমাজবাদী পার্টির মুসলিম নেতা আজম খান আগেই বলেছেন, মুসলিমরা শুধু শরিয়া মানবে, তাতে যেমনি আইন তৈরি করা হোক। আর এখন সমাজবাদী পার্টির আরেক নেতা খোলাখুলি বলেছেন, আমরা কোনো আইন মানতে পারবো না, শুধুমাত্র শরিয়া ও কোরানকে মেনে চলবো।

সপা(সমাজবাদী পার্টি) নেতা আবু আজমি যিনি আতঙ্কবাদীদের সমর্থক হিসেবে এবং কট্টরপন্থী ইসলামিক ধৰ্মগুরু জাকির নায়েকের ধৰ্মগুরু হিসেবে কুখ্যাত তিনি তিন তালাকের উপর এমন মন্তব্য করেছেন। আবু আজমি টুইটারের মাধ্যমেও তার বক্তব্য পেশ করেছেন এবং শুধুমাত্র কোরান ও শরিয়া মেনে চলার কথা বলেছেন।

আবু আজমি বলেছেন, আমি স্পষ্ট জানাচ্ছি যে মুসলিমরা শুধু কোরান ও শরিয়াকে মেনে চলবে, যত ভাবেই আইন তৈরি হোক সেই আইন আমরা মানব না। জানিয়ে দি, ভারত কোনো ইসলামিক দেশ নয়, তাই ভারতের জনগণ আইন কানুন ও সংবিধানের ভিত্তিতে চলে। কিন্তু মুসলিম নেতারা এখন খোলাখুলি উগ্রভাবে দেশের আইন, কানুন না মানার ইঙ্গিত দিয়ে দেশের বাকি মুসলিমদের উস্কানি দিচ্ছেন। লক্ষণীয় বিষয় এই যে দেশের মেইন স্ট্রিম মিডিয়া কট্টরপন্থী নেতাদের বক্তব্য নিয়ে কোনো ডিবেট বা প্রাইম শো করতে রাজি নয়।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.