Press "Enter" to skip to content

বহুবার সঠিক ভবিষ্যতবাণী করা জ্যোতিষী বললেন,এই দিন শুরু হবে ভারত ও পাকিস্থানের মহাযুদ্ধ।

পুলবামা হামলার পর থেকে দেশে যুদ্ধকাল স্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। গোয়েন্দা সূত্র থেকে বার্তা নেওয়ার পর বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী দেশ আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প পর্যন্ত বলেছেন যে, ভারত-পাকের স্থিতি ভয়ঙ্কর। এই স্থিতিকে লক্ষ করে দেশের কিছু জ্যোতিষী ভারতের কুণ্ডললীর অধ্যয়ন করেছেন। আর সকল জ্যোতিষী প্রায় এক মতে এটা স্বীকার করেছেন যে আগত দিন ভারত ও পাকিস্থানের মধ্যে মহাযুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পাকিস্থানের কুণ্ডলী অনুযায়ী, এই যুদ্ধে পাকিস্থানের পাল্লা ভারতের তুলনায় দুর্বল রয়েছে। পাকিস্থানের পাল্লা ভারতের তুলনায় খুবই দুর্বল হওয়ায় যুদ্ধে ভারতের বড় জয় হবে।

বহু সঠিক ভবিষ্যতবাণী করা জ্যোতিষী অরবিন্দ তেওয়ারী এক হিন্দি পত্রিকার ভারত-পাক স্থিতি নিয়ে ভবিষ্যতবাণী করেছেন। উনি বলেছেন এই সময় ভারতের কুণ্ডলীর দুটি গ্রহ পাকিস্থানের উপর দৃষ্টি রেখেছে। এর অর্থ কিছু দিনের মধ্যেই মহাযুদ্ধ হওয়ার সংকেত পাওয়া যাচ্ছে। পন্ডিত অরবিন্দ তেওয়ারীর বলেন, ভারতের কুন্ডলী অধ্যয়ন করে এটা বোঝা যাচ্ছে যে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মহাযুদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আগামী ৬ মার্চ ২০১৯ থেকে রাহুর অবস্থান কর্কট থেকে মিথুন রাশিতে হতে চলেছে। ভারতের রাশির এহেন পরিবর্তন তথা শনির প্রতি মঙ্গলের দৃষ্টি এমন যোগ তৈরি করছে যা যুদ্ধের দিকেই ইঙ্গিত দিচ্ছে। পন্ডিত অরবিন্দ তেওয়ারী বলেন, এর আগেও যখন যখন গ্রহের এমন অবস্থান হয়েছে তখন তখন ভারত পাকিস্থানের মধ্যে যুদ্ধে হয়েছে।

পন্ডিত অরবিন্দ তেওয়ারী বা অন্যান্য জ্যোতিষীদের কথা বাদ দিয়ে যদি বাস্তবিক স্থিতির উপর লক্ষ করা হয়, তাও যুদ্ধের পরিস্থিতি দিকেই ইঙ্গিত মিলছে। যদি ভারত কোনো ছোট স্ট্রাইক করতো তাহলে পাকিস্থানে থাকা রাজদূতকে ফেরত আসতে বলা হতো না, আর ভারতের NSA অন্যান্য দেশের NSA কে নিয়ে আলোচনাও করতো না। শুধু এই নয়, সরকার নির্দেশ দিয়েছে জম্মুকাশ্মীরে রেশন ও ওষুধ জমা করার জন্য যার অৰ্থ বলে বোঝানোর প্রয়োজন নেই।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.