Press "Enter" to skip to content

জেনারেলদের সংরক্ষণ দেওয়ার পর, এবার গরিবদের জন্য দুর্দান্ত পদক্ষেপ নিতে চলেছে মোদী সরকার।

দেশের জনতাকে উপহার দিয়ে বিরোধিদের ঝটকা দেওয়ার জন্য মোদী সরকার আরো একটা বড় পস্তুতি নিতে শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রী মোদীর সরকার প্রথম থেকেই গরিবী সীমার থেকে নীচে থাকা জনতার সাহায্য করার জন্য এক পা এগিয়ে থাকে। গরিবী সীমার নীচে জীবনযাপন করা ব্যাক্তিদের উপরে উঠানোর  জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদী  সর্বদা সচেষ্ট রয়েছেন। গরিব পরিবারের ছেলে মেয়েদের জন্য উচ্চশিক্ষা এবং চাকরির সংরক্ষণ এর ব্যবস্থা প্রধানমন্ত্রী করে ফেলেছেন এবার পালা  পরিবারগুলিকে সমর্থন দেওয়ার। দেশে এখনো এমন বহু পরিবার রয়েছে যারা দুবেলা ঠিক মতো খাবার সংগ্রহ করতে পারে না। মোদী সরকার সেই সমস্থ পরিবারকে একটা নিশ্চিত অর্থ প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এই অর্থ সরাসরি গরিব পরিবারের ব্যাঙ্কের ঢুকবে। ডিরেক্ট ব্যাঙ্ক বেনিফিট এর মাধ্যমে মোদী সরকার এই অর্থ গরিবের খাতায় জমা করবে যাতে মাঝে কোনো সরকারি ব্যাক্তি এই টাকা নিয়ে নয়ছয় করতে না পারে। সরকারি কোষাগার থেকে টাকা যাতে গরিব মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারে তার জন্যেই সরকার DBT এর ব্যবস্থা করতে চলেছে।

গরিব পরিবারের খাতায় DBT এর মাধ্যমে ২০০০-২৫০০ টাকা প্রদান করা হবে। এর জন্য সরকার পস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। এই যোজনার জন্য সরকার ৩০ হাজার কোটি থেকে ৪০ হাজার কোটি টাকা প্রতি বছর খরচ করবে। ২০১১ এর জনগণনা অনুযায়ী এই সুবিধার লাভ গরিবী রেখার নীচে থাকা ২৭ লক্ষ মানুষেরা পাবেন। জেনারেল বর্গকে ১০ শতাংশ সংরক্ষণ দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন যে রাজ্য সভায় বিল পাশ হওয়ার পরেই গরিব সাধারন বর্গকে সংরক্ষণ দেওয়ার মোহর লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন সধারণ বর্গকে সংরক্ষণ দেওয়ার মাধ্যমে দেশে সবকা সাথ সবকা বিকাশের মন্ত্র মজবুত হয়েছে।

জানিয়ে দি, প্রধানমন্ত্রী মোদীর এই যোজনাও ধৰ্ম ও জাতির তুষ্টিকরণ থেকে মুক্ত হবে। এই যোজনা প্রত্যেক ধৰ্ম, প্রত্যেক জাতিকে লাভবান করবে যা ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ এর শ্লোগানকে মজবুত করবে। রাজ্যসভায় ও লোকসভায় জেনারেল সংরক্ষণ বিল পাশ করিয়ে বিরোধিদের চমক দিয়ে দিয়েছে মোদী সরকার। ঠিক লোকসভা নির্বাচনের আগে বিল পেশ করার সদনে বিরোধিতাও করতে পারেনি কংগ্রেসি ও বামপন্থীরা। আর এখন আর এক বড় পদক্ষেপ নিয়ে বিরোধী দোলগুলিকে ঝটকা দিতে চলেছে বিজেপি।

Be First to Comment

Leave a Reply