Press "Enter" to skip to content

মোদী বিরোধী মিথ্যা প্রচার করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়লো এবিপি নিউজ ও তাদের সাংবাদিক।

দেশে এমন অনেক নিউজ চ্যানেল রয়েছে যারা নিজেদেরকে নিরপেক্ষ বলে দাবি করে এবং কিছু সাংবাদিকও আছেন যারা নিজেদের নিরপেক্ষ সাংবাদিক বলে দাবি করেন। এমন কিছু সাংবাদিকও রয়েছেন যারা নিজেদেরকে মানুষের আওয়াজ বলে দাবি করেন। কিন্তু একটু ভালো করে যাচাই করলে বোঝা যায় যে এদের আসল ছবি কি। যারা নিজেদেরকে জনগণের আওয়াজ বলে দাবি করে তাদের অনেকেই আসলে নেতা মন্ত্রীদের দালালি করেন। এমনি এক সত্য এদিন দেশের সামনে বেরিয়ে এসেছে। আসলে দেশের এক বড়ো নিউজ মিডিয়া চ্যানেল এবিপি নিউজ ও তাদের সাংবাদিক পুন্য প্রসূন বাজপেয়ী যারা বেশিরভাগ সময় মোদী বিরোধী প্রচারেই ব্যাস্ত থাকে তাদের মুখোশ এদিন দেশবাসীর সামনে খুলে গিয়েছে। আসলে এবিপি নিউজ কিছুদিন আগে একটা ভিডিও দেখায় যার মাধমে তারা প্রমান করে যে মোদীজি ও তার সরকার কৃষকদের ইনকাম দ্বিগুন হওয়া নিয়ে মিথ্যা প্রচার করছে। এই বিষয়ের প্রমান হিসেবে তারা একটা এডিট করা ভিডিও যোগ করে। আপনারা আগে এই ভিডিটি দেখুন-

এই ভিডিওটিতে এবিপি নিউজ দেখিয়েছে যে ছত্রিশগড়ের চন্দ্রমনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে কৃষি থেকে ইনকাম দ্বিগুন হওয়ার কথা বললেও তা সত্য নয়। এখন এবিপি নিউস দাবি করে মোদী ও তার টীম চন্দ্রামনিকে ভুল বুঝিয়ে দ্বিগুন ইনকামের কথা বলিয়েছিল। এখণ আসল সত্য এই যে এবিপি জনগণকে মোদীজির সাথে চন্দ্রমনির পুরো বক্তব্য দেখায়নি। যেখান চন্দ্রামিনি জানিয়েছে যে ধান উৎপাদনে তার ইনকাম ভালো হয়নি কিন্তু ট্রেনিং নিয়ে সীতাফল উৎপাদন করার পর তার আয় দ্বিগুন হয়েছে। কিন্তু এবিপি নিউজ সীতাফলের সমস্থ ব্যাপারটা লুকিয়ে মোদী বিরোধী খবর দেখাতে শুরু করে যা টুইট করে মিথ্যা নাটক করেন দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। নিচের ভিডিওটি দেখলে আপনারা সব পরিষ্কার বুঝতে পারবেন। ভিডিও-

এমনকি দেশের অনান্য সাংবাদিকরা চন্দ্রামনির কাছে গেলে তিনি পরিষ্কার জানান যে এবিপি নিউস তার বক্তব্য ও অন্যভাবে ভেঙে চুরে টিভিতে দেখাচ্ছে। চন্দ্রামনি বলেন, যে আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলেছিলাম যে আমার সীতাফল থেকে আয় দ্বিগুন হয়েছে, কিন্তু এবিপি নিউজ আমার কথাকে ঘুরিয়ে মানুষের কাছে দেখাচ্ছে।

তবে এই প্রথম নয় ২০১৪ সালে অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও এবিপি নিউজ এর সাংবাদিককে মিলে স্ক্রিপ্ট তৈরী করতে দেখা গিয়েছে। যেখানে স্ক্রিপ্ট তৈরীর সময় অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও পুন্য প্রসূন বাজপেয়ীর যিনি দেশে ক্রান্তিকারী সাংবাদিক হিসেবে পরিচিত মাইক ক্যামেরার কাছে থেকে সরিয়ে রাখতে ভুলে গিয়েছিলেন। সেই ভিডিও নিচে-