Press "Enter" to skip to content

AIUDF-এর বিধায়ক আমিনুল ইসলামের বাবার শেষকৃত্যে জড় হল হাজার হাজার মানুষ! ঘুম উড়ল প্রশাসনের

নওগাঁঃ গোটা দেশে করোনার কারণে সামাজিক দূরত্বের নিয়ম পালন করা হচ্ছে। আর কারোর শেষ কৃত্যে ২০ জনের বেশি অংশ নেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। কিন্তু অসমের (Assam) নওগাঁ জেলায় সামাজিক দূরত্বের সমস্ত বিঁধি নিষেধ অমান্য করার একটি ভিডিও () সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) ভাইরাল (Viral) হচ্ছে। এক মৌলানাকে শেষ বিদায় জানানোর জন্য কমপক্ষে ১০ হাজার মানুষ একত্রিত হয়। পরে প্রশাসন বাধ্য হয়ে একসাথে তিনটি গ্রামকে সিল করে দেয়। এছাড়াও এই ঘটনায় অনেক জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

একটি ইংরেজি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্র্যাটিক ফ্রন্ট (AIUDF) এর বিধায়ক ের বাবা খাইরুল ইসলাম ২রা জুলাই মারা যান। ৮৭ বছর বয়সী খাইরুল ইসলাম অল ইন্ডিয়া জামাত উলেমা আর আমির-এ-শরিয়তের সহ সভাপতি ছিলেন। উনি নিজের এলাকায় বিখ্যাত ব্যাক্তি হিসেবে পরিচিত ছিলেন। আর এই কারণে ওনার জানাজায় হাজার হাজার মানুষ একত্রিত হয়। প্রশাসন অনুযায়ী, ওই জানাজায় কমপক্ষে ১০ হাজার জন একত্রিত হয়েছিল।

নওগাঁ এর জেলা প্রশাসক যাদব সৈকিয়া বলেন, আমরা এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত দুজনকে গ্রেফতার করেছি। একজনের বিরুদ্ধে পুলিশ মামলা দায়ের করেছেন, আরেকজনের বিরুদ্ধে ম্যাজিস্ট্রেট মামলা দায়ের করেছেন। সৈকিয়া বলেন, ের সংক্রমণ রোখার জন্য আশেপাশের তিনটি গ্রামে লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। উনি বলেন, জানাজায় উপস্থিত কেউই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেনি আর না কেউ মাস্ক পরেছিল।

আরেকদিকে AIUDF এর বিধায়ক আমিনুল ইসলাম বলেন, আমার বাবা খুব জনপ্রিয় মানুষ ছিলেন। আর ওনাকে অনেক মানুষই ভালবাসতেন। উনি বলেন, ‘আমরা মৃত্যু আর শেষকৃত্যের বিষয়ে প্রশাসনকে জানিয়েছিলাম। পুলিশ সবাইকে ওখানে না যাওয়ার জন্য নিষেধও করেছিল। অনেক গাড়িকে সেখান থেকে ফিরে যেতে বলা হয়েছিল, তবুও সেখানে হাজার হাজার মানুষ জড় হয়ে যায়।” আমাদের পক্ষে এই ভিডিওর সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

আপনাদের জানিয়ে দিই, এই বছরের এপ্রিল মাসেই আমিনুল ইসলামের একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছিল। যেখানে উনি সাম্প্রদায়িকতা ছড়ানোর জন্য মানুষকে উসকানি দিচ্ছিলেন। এরপর ওনার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহ এর মামলা অনুযায়ী গ্রেফতার করা হয়। আপাতত তিনি জামিনে মুক্ত।