Press "Enter" to skip to content

জঙ্গি সংগঠন জামাত-এ-ইসলাম এর সমর্থনে পথে নামলো আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সঙ্ঘ

ের ছাত্র সঙ্ঘের সভাপতি প্রতিবন্ধিত সংগঠন এর নিষেধাজ্ঞা জারি করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার পর উত্তরপ্রদেশের রাজনীতির আবহাওয়া আবার গরম হয়ে উঠলো।

ছাত্র সঙ্ঘের বিক্ষোভের পর বিজেপি যুব মোর্চার জেলা সভাপতি সর্বশক্তি নিয়ে এই ঘটনার বিরুদ্ধে রাস্তায় নামেন। তিনি এসএসপি এর সাথে দেখা করে ছাত্র সঙ্ঘের সভাপতির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি করেন। এসএসপি যুব মোর্চার জেলা সভপতিকে প্রশাসনের কাছে এই ইস্যু নিয়ে পত্র লেখার আশ্বাস দেন।

বিজেপির যুব মোর্চার জেলা সভাপতি মুকেশ সিং বৃহস্পতিবার সমর্থকদের সাথে মিলে এসএসপি আকাশ কুলহিরর সাথে সাক্ষাৎ করে ছাত্র সঙ্ঘের সভাপতি সালমান ইমতিয়াজের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি তোলেন।

মুকেশ সিং জানান যে, এসএসপি আলীগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনকে চিঠি লেখার আশ্বাস দেন। মুকেশ সিং বলেন, এএমইউ থেকেই কেন বারবার এরকম সংবেদনশীল মামলা ওঠে? এএমইউ এর ছাত্র সংগঠনের সভাপতি সালমান এই ব্যাপার নিয়ে মুখ খুলতে চাননি।

জামাত-এ-ইসলামি জম্মু কাশ্মীরের এমনও একটা সংগঠন যার ফান্ডিং পাকিস্তান এবং জৈশ-এ-মহম্মদ এর তরফ থেকে করা হয়। এই সংগঠনের উপর এর আগেও অনেক অভিযোগ উঠেছিল। এই সংগঠনের উপর সবথেকে বড় অভিযোগ হল, এদের ছায়াতলে থাকা মাদ্রাসা, এবং ধর্মীয় স্থানে দেওয়া হয়।
এবং এরা কাশ্মীরে জঙ্গিদের আর্থিক সাহাজ্য করে পাকিস্তান থেকে টাকা নিয়ে। এমনকি এরা কাশ্মীরকে ভারত থেকে আলাদা করে পাকিস্তানের সাথে যুক্ত হতে চায়। পুলওয়ামা হামলার পর মোদী সরকার জঙ্গিদের সহায়তার অভিযোগে জামাত এ ইসলামিকে নিষিদ্ধ করে, এবং তাঁদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া শুরু করে।

6 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.