Press "Enter" to skip to content

হিন্দুউৎসব নিয়ে আপত্তিজনক মন্তব্য করলেন আমির খান! হিন্দুউৎসবকে জুয়াবাজির সাথে জুড়ে দিলেন আমির খান।

বলিউড অভিনেতা তথা ফিল্মবাজ অজান্তে কোনোকিছু বলেন না, যা করেন ও বলেন সবকিছুই অনেক ভেবেচিন্তে। ভালো করেই জানেন যে ভারতীয় হিন্দুদের যতই গালি দাও, যতই অপমান করো, ওরা আবার আমাদেরই সিনেমা দেখবে। কারণে ভারতে হিন্দুদের মধ্যে সেকুলারিজম এমনভাবে ঢুকে গেছে যে গালিকেও মিষ্টি মনে হয়। ভারত অসুরক্ষিত দেশ, ভারত বসবাসের অযোগ্য দেশ, এইসব কিছু বলার পরেও ভারতীয়রা ের সিনেমা দেখতে ছুটে যায়। এখন আরো একবার হিন্দুদের বড়ো উৎসব দিপাবলীকে নিয়ে আপত্তিজনক মন্তব্য করেছেন। আসলে জানেন যে হিন্দুদের বিরুদ্ধে বললে বিরোধ তো দূর বরং সেকুলারবাদী হিন্দুরা উনাকে সমর্থন করবেন। কারণ তথাকথিত ধৰ্মনিরপেক্ষবাদী হিন্দুরা নিজের ধৰ্ম ও দেশকে গালি দিতেই পছন্দ করে।

আমির খান বলেছেন, “দীপাবলী নিয়ে আমরা একটা জিনিস খুব মনে পড়ে সেটা হলো জুয়াবাজি।” আমির খানের মতে দীপাবলির অর্থ জুয়াবাজি, দিপাবলীর প্রধান পরিচয় জুয়া খেলার মাধ্যমেই ফুটে উঠে। গতকাল অর্থাৎ ৮ নভেম্বর আমির খান নিয়ে এমন কুমন্তব্য করেছেন। আমির বলেছনে এলেই আমরা মাথায় জুয়াবাজির আসে, দীপাবলীতে আমি একটাই কাজ করতে ভালোবাসি সেটা হলো জুয়া খেলা। আমি তাস খেলতেও খুব পছন্দ করি দিপাবলীতে। আমির খান হিন্দুদের সবথেকে বড়ো উৎসবকে জুয়াবাজির সাথে জুড়ে দিয়েছেন।

হিন্দুরা দীপাবলিকে ভগবান রামচন্দ্র এর অযোধ্যা ফিরে আসা, অশুভ শক্তিকে হারিয়ে শুভ শক্তির জিত, অন্ধকার হারিয়ে আলোর জিতের রূপে পালন করে। কিন্তু আমির খান দিপাবলীকে জুয়া খেলার সাথে জুড়ে দিয়েছেন। আমির খান জেনে বুঝেই এই মন্তব্য করেছেন কারণ উনি জানেন যে ভারতের হিন্দুদের ব্রেন ওয়াশ হয়ে গেছে। এবার হাসতে হাসতে হিন্দুদের ধৰ্ম ও দেশের যার বিরুদ্ধে যাই বলা হোক না কেন, সমস্থকিছুই হিন্দুরা হাসি মুখে মেনে নেবে।

দেশের কিছু রাষ্ট্রবাদী , আত্মমর্যাদা সম্পন্ন হিন্দু অবশ্যই বিরোধ করবে কিন্তু তথাকথিত ধৰ্মনিরপেক্ষ হিন্দুদের সমর্থন অবশই আমিরের মতো লোকের সাথে থাকবে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, আমির খান সেই ব্যক্তি যিনি ইসলামে হালালার মতো কুপ্রথা নিয়ে কখনো মুখ খোলেন না, কিন্তু হিন্দুদের উৎসবকে জুয়াবাজির সাথে জুড়ে দেন।এটা সেই আমির খান যিনি ভারতের বন্ধু দেশ ইজরায়েলের রাষ্ট্রপতির আমন্ত্রণ প্রত্যাখান করেন এবং পাকিস্থানিদের আপনজন বলেন।