Press "Enter" to skip to content

অবৈধ বাংলাদেশি ইস্যুতে মমতা ব্যানার্জীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন অমিত শাহ।

NRC বিষয় নিয়ে দেশের রাজনীতি তুঙ্গে, এমত অবস্থায় তৃণমূল,কংগ্রেস ও বামপন্থীরা এক হয়ে বিজেপিকে আক্রমণ করতে নেমে পড়েছে। আসলে বহু বছর ধরে বাংলাদেশ লাগোয়া রাজ্যগুলিতে বাংলাদেশিরা অবৈধভাবে প্রবেশ করে বসবাস করছিল। এমনকি কিছু কিছু জেলায় আসামের মূল নিবাসীদের তাড়িয়ে সেখানে বসবাস করতে শুরু করেছিল অবৈধ বাংলাদেশিরা। বহুবার আন্দোনের পর সুপ্রিম কোর্ট NRC করে ভারতীয় ও বিদেশিদের নাম নির্বাচনে জন্য সরকারকে নির্দেশ দেয়। কিন্তু ২০১৯ নির্বকচন সামনে থাকায় দেশের নিরাপত্তার ইস্যু নিয়েও রাজনীতি শুরু করেছে বিজেপি বিরোধী দলগুলি।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী এই ইস্যুতে কেন্দ্রকে এক হাতে নিয়ে ক্ষোপ প্রকাশ করেছেন। প্রথম দিকে বিজেপি বিরোধীদের জানিয়েছিল যে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সবকিছু করা হচ্ছে, কিন্তু বিরোধীরা এতেও চুপ না হওয়ায় এবার একে একে মুখ খুলতে শুরু করেছে বিজেপির উচ্চস্তরের নেতা। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ কংগ্রেস ও TMC এর তুমুল নিন্দা করে বলেন, দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে জলাঞ্জলি দিয়ে ভোট ব্যাঙ্কের রাজনীতি করছে বিরোধীরা।

শুধু এই নয় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর সাধারণ জ্ঞান নিয়েও কটাক্ষ করেন অমিত শাহ। শাহ বলেন, তৃণমূলের কাছে রাজনীতির স্বার্থ দেশের থেকে আগে হয়ে গেছে, নিজের সাধারণ জ্ঞান বাড়ানো উচিত মমতা ব্যানার্জীর। আপনাদের জানিয়ে রাখি, গতকাল রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ NRC সম্পকে মন্তব্য করতে গিয়ে এ রাজ্যেও ওই পক্রিয়া করার কথা বলেন, এবার দিলীপ ঘোষের কথার মতো করেই অমিত শাহ জানান পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলেই করা হবে NRC

গতকাল NRC এর রিপোর্ট বেরোনোর পরেই কেন্দ্রকে আক্রমণ করে মমতা বলেছিলেন যে কেন্দ্র বাঙালি খেদাও, বিহারী খেদাও করতে চাইছে। এখন সেই ব্যাপারে পাল্টা জবাব দিতেই মমতার সাধারণ জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুললেন অমিত শাহ। অমিত শাহ বলেন, অসমে যারা দীর্ঘদিন ধরে অনুপ্রবেশ করে বসবাস করছে তারা দেশের স্বার্থকে নষ্ট করছে।