Press "Enter" to skip to content

রাজ্যে নৃশংস ভাবে খুন আরেক বিজেপি কর্মী, অভিযুক্ত সেই তৃণমূল!

এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ নয়। বামপন্থী কবি নবারুণ ভট্টাচার্য একসময় এই গদ্যটি লিখেছিলেন। আর সেই গদ্য এখন ধীরে ধীরে সত্যতে পরিণত হতে চলেছে। তবে দেশ না, এই রাজ্য পরিণত হতে চলেছে মৃত্যু উপত্যকায়। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এরাজ্যে গণতন্ত্র হত্যার ছবি আমরা দেখেছিলাম। আর সেই অগণতান্ত্রিক পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য এই বছরের লোকসভা নির্বাচনে মোতায়েন হয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। রাজ্যে মাত্রাতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েনের জন্য শাসক দল তৃণমূল নির্বাচন কমিশন এবং কেন্দ্র সরকারকে আক্রমণ করে বলেছিল, তাঁরা বাংলার অপমান করছে।

কিন্তু এত কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়েও সুস্থ এবং শান্তিপূর্ণ ভোট করানো সম্ভব হয়নি নির্বাচন কমিশনের! রাজ্যে এবার সাত দফায় ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়া চলেছে। আর প্রতিটি দফাতেই রাজ্যের ভেঙে পড়া আইনশৃঙ্খলা এবং নগ্ন গণতন্ত্রের চেহারা ফুটে উঠেছে।

ভোটের পরেও এরাজ্যে নরসংহারের আশঙ্কা জাহির করেছিল কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। সেই মতে ভোট গণনার পরেও এরাজ্যে মোতায়েন ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। ভোট শেষ, ফলাফলও ঘোষণা হয়ে গেছে। আর ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরই এরাজ্যে শুরু হয়েছে হত্যালীলা।

গত শনিবার উত্তর ২৪ পরগণার সন্দেশখালিতে পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে ৪ বিজেপি কর্মীকে খুন করেছিলে তৃণমূলের দুষ্কৃতী বাহিনী। একদিকে চার বিজেপি কর্মী হত্যা, আরেকদিকে কয়েকজন বিজপি কর্মী নিখোঁজ হওয়ার পর উত্তাল হয়েছিল রাজ্য রাজনীতি। শুধু সন্দেশখালিতেই নয়, হাওড়ার আমতাতেও তৃণমূলের হাতে শুধুমাত্র জয় শ্রী রাম বলার অপরাধে খুন হতে হয়েছিল এক বিজেপি কর্মীকে।

এরপরেও থেমে থাকেনি এই নরসংহার। এবার আরেক বিজেপি কর্মীকে নৃশংস ভাবে খুনের মামলা সামনে এলো মালদা জেলা থেকে। গত দুদিন ধরে বিজেপি কর্মী অসিত সিংহ (৪৭) নিখোঁজ থাকার পর বুধবার সকালে ঝলসানো দেহ উদ্ধার হল তাঁর। অসিত সিং সক্রিয় বিজেপি কর্মী বলেই পরিচিত এলাকায়।

বুধবার সকালে ইংরেজবাজার থানার বাধাপুকুর এলাকায় বিজেপি কর্মী অসিত সিংহ এর ঝলসানো দেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত্যু নিশ্চিত করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে দেওয়া হয়েছিল একাধিক কোপ। স্থানীয় মানুষ এবং বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্ব এই খুনের জন্য তৃণমূলকে দায়ি করেছে। যদিও সবার অভিযোগ খারিজ করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

you're currently offline