Press "Enter" to skip to content

তৃণমূলের দাবি ভুল প্রমাণিত হলো!দলীয় কার্যালয়ে বিস্ফোরণের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৭ তৃণমূল সমর্থক।

কয়েকদিন আগে ের কাঁকরতলায় একটি বোম বিস্ফোরণ ঘটে। সেই বিস্ফোরনে উড়ে যায় তৃনমূলের কার্যালয়। বিস্ফোরনের জোর এতটাই ছিল যে কার্যালয়ের জানলা দরজা উড়ে গিয়ে পরে পাশের রাস্তায়। বিস্ফোরনের পর জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল দাবি করেছিলেন যে, এই বিস্ফোরন ঘটিয়েছে বিজেপির লোকজন। বিজেপি ঝাড়খণ্ড থেকে লোক আনিয়ে এই সব ঘটনা ঘটাচ্ছে। কিন্তু মঙ্গলবার বেরিয়ে এল এক অন্য ঘটনা। কাঁকরতলায় বিস্ফোরনে পুলিশ এবার যাদের গ্রেফতার করল তারা ৭ জনই হল তৃনমূল সমর্থক। তাদের গ্রেফতার করার পর সেইদিনই অর্থাৎ মঙ্গলবার তোলা হয় দুবরাজপুর আদালতে। এইদিন বম্ব স্কোয়াড আনা হয় দুর্গাপুর শহর থেকে।

বীরভূমের বড়রা গ্রাম যেটি অবস্থিত কাঁকরতলা এলাকায়। সোমবার সকালে সেখানে থাকা একটি তৃনমূলের দলীয় কার্যালয়ে বিস্ফোরন ঘটে। বিকট শব্দে কেঁপে উঠে এলাকা। সেই শব্দ শুনে ছুটে আসেন এলাকাবাসীরা। স্থানীয়রা দাবি করেন যে, এই বিস্ফোরনের কম্পন এতটাই তীব্র ছিল যে আশেপাশে থাকা সমস্ত বাড়ির জানলা-দরজা কেঁপে উঠে। বিস্ফোরনের ফলে সেই কার্যালয়টির ছাদটি পুরোটাই উড়ে গিয়েছে। জানলা-দরজা ভেঙে গিয়েছে। সেগুলি পাশের রাস্তার ওপারে পরে আছে। তবে সেইসময় কার্যালয়টির ভিতরে কেউ না থাকার কারনে এখনও অব্দি হতাহত হয়নি বলেই জানা যাচ্ছে।

কাঁকরতলা থানার পুলিস স্থানীয় বাসিন্দাদের থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পুলিশ গিয়ে খতিয়ে দেখেন বিস্ফোরনের কারন। দলীয় কার্যালয়ের মধ্যে বিস্ফোরক বা বোমা মজুত ছিল কিনা, সেই ব্যাপারটিও পুলিশ খতিয়ে দেখেন। নাকি এর নেপথ্যে রয়েছে অন্য কোনো কারন সেই ব্যাপারেও পুলিশ নজর রাখেন।
অনুব্রত মণ্ডল যিনি জেলা সভাপতি তিনি দাবি করেছিলেন যে, এই বিস্ফারনের পিছনে বিজেপির হাত রয়েছে। বিজেপি ঝাড়খণ্ড থেকে লোক আনিয়ে বিস্ফারণ করেছে। অভিযোগ উড়িয়ে পাল্টা বিজেপি শিবির থেকে দাবি করা হয় যে, গোষ্ঠীদ্বন্দের ফলেই হয়েছে এই বিস্ফোরন । তারা গোষ্ঠীদ্বন্দের কারনে কার্যালয়ের বোমা মজুত রেখেছিল সেই কারনেই ঘটেছে এমন বিস্ফারণ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আপনাদের জানিয়ে রাখি পশ্চিম মেদিনীপুরের নারায়ণগড়ে গত মাসের ২৮ তারিখ একটি বিস্ফোরনে তৃণমূল কার্যালয় উড়ে যায়। সেইদিনের বিস্ফোরনের ফলে তৃণমূলের ২ জন কর্মীর মৃত্যু হয়, আহত হয় আরও ৩ দিন। সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা দাবি করেছিলেন যে, অনেকদিন ধরেই তৃণমূলের ওই কার্যালয়ে মজুত করা ছিল বোমা, সেই মজুত বোমা থেকেই এমন বিস্ফোরণ হয়েছে বলে দাবি করা হয়।
#অগ্নিপুত্র