in ,

বন্যা থেকে কেরলবাসীকে উদ্ধার করলো সেনা ও RSS, কিন্তু পোষ্টার লাগিয়ে ধন্যবাদ জানানো হলো UAE দেশকে।

আরো একবার সীমাহীন নির্লজ্জতার পরিচয় দিলো বামফ্রন্ট ও কিছু কট্টরপন্থী। কেরালায় বন্যাদুর্গত মানুষদেরকে সাহায্য করার সময় হাত এগিয়ে দিয়েছিল সেনা, NDRF ও আরএসএস এর সয়ংসেবকরা। কেরালার উদ্ধারকাজ চলবার সময় বিশাল ও পি রাঘুনাথ নামের দুই সয়ংসেবক প্রাণ হারান। কিন্তু তাতে আর কি যায় আসে কমিউনিস্ট আর কট্টরপন্থীরা ভারতকে ছোট দেখানোর জন্য যেকোনো পর্যায় পর্যন্ত নীচে নামতে পারে। কেরালার বন্যার জন্য কেন্দ্র সরকার ছাড়াও দেশের আলাদা আলাদা রাজ্য কোটি কোটি টাকা সিপিএম শাসিত কেরালায় পৌঁছায়। দেশের সাধারণ জনগণও নিজেদের সাধ্য মতো অনলাইনে হোক বা অন্যভাবে হোক অর্থ দান করে সাহায্য করেন। কিন্তু কেরালার বামফ্রন্ট সরকার ধন্যবাদ জানালো UAE কে যারা ১ আনা পর্যন্ত কেরালকে দান করেনি।

নিচের ছবি সম্প্রতি কেরালা থেকেই নেওয়া হয়েছে।এই পোস্টার কেরালার প্রত্যেক প্রান্তে লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং প্রচার করা হচ্ছে যে UAE আমাদের সাহায্য করেছে। কেরালার প্রত্যেক জেলার প্রত্যেক বড়ো বড়ো শহরে এই রকম ব্যানার লাগানো হয়েছে যেখানে UAE এর শাসকদের ছবি রয়েছে। ছবিতে পুরো কেরলার মানচিত্রকে সবুজ করে দেওয়া হয়েছে এবং দেখানো হয়েছে যে UAE এর হাত ডুবন্ত কেরলাকে বাঁচিয়ে নিয়েছে। কেরালার বন্যায় ভারতীয় সেনা নিজেদের প্রানের ঝুঁকি নিয়ে উদ্ধার কাজে নেমেছিল।

জানলে অবাক হবে জনগণের প্রাণ বাঁচানোর জন্য সেনা তাদের নিজেদের নিয়ম পর্যন্ত ভেঙে দিয়েছিল। যেখানে হেলিকপ্টার নামানো বারণ সেখানেও হেলিকপ্টার নামিয়ে মানুষের প্রাণ রক্ষা করেছিল, সয়ংসেবকরাও প্রতিদিন হাতে হাত মিলিয়ে উদ্ধারকাজ ও সেবার কাজে নেমে পড়েছিল। কিন্তু এই বামপন্থীরা সেনা , RSS বা অন্য রাজ্যের জনগণের প্রতি একবারের জন্যেও পোষ্টার লাগিয়ে ধন্যবাদ জানাইনি। হ্যাঁ তবে যারা ১ কানা কড়ি দেয়নি সেই UAE কে ধন্যবাদ জানিয়েছে। জানলে অবাক হবেন এটা সেই কেরালার সরকার যারা

কেরালায় বন্যার জন্য ১৫ আগস্ট পালন না করলেও  দেশের জনগণ যে টাকা কেরালার মুখ্যমন্ত্রী ফান্ডে দান করেছিল সেই টাকায় বকরি ঈদ পালনের সুব্যবস্থা করেছিল সরকার। প্রসঙ্গত, স্বাধীনতার পর থেকেই কেরালা কখনো বামপন্থী কখনো কংগ্রেসিদের হাতে ছিল যার জন্য কেরালায় হিন্দুদের ধর্মান্তরণ সবথেকে দ্রুত গতিতে হয়েছে। এত বছর ধরে বামপন্থীরা ও কংগ্রেসিরা রাজত্ব করায় কেরালার শিক্ষার মধ্যেও কমিউনিস্ট চিন্তাধারা ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। যার কারণে কেরলবাসী প্রতিবাদের ভাষা পর্যন্ত ভুলে গেছে।

‘ভারতে নারীরা অসুরক্ষিত’- জার্মানিতে গিয়ে এইভাবেই ভারতের অপমান করলেন রাহুল গান্ধী।

সুরক্ষাকর্মী ছাড়াই, কাউকে না জানিয়ে কেন মায়ের কাছে পৌঁছালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী!