Press "Enter" to skip to content

ভয়াবহ আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেফতার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়কের গাড়ির চালক।

যিনি শুধু একজন নাম করা তৃনমূল নেতাই ছিলেন না তিনি ছিলেন বিধায়ক। এবার এই তৃনমূল নেতার গাড়ির চালক সুমন দাস কে করল। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার। পুলিশ তাকে আগ্নেয়াস্ত্র-সহ সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করেন। অত্যাধুনিক মানের একটি নাইন এমএম পিস্তল সহ তার কাছে পাওয়া গেছে সাত রাউন্ড গুলিও। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে বালুরঘাট আদালতে তোলা হয়। পুলিশি তদন্তের জন্য সেখানে তাকে ১৪ দিনের পুলিশ রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। ের প্রাক্তন বিধায়ক সত্যেন্দ্রনাথ রায়ের গাড়িটি সুমন দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে চালাত। রবিবার রাতে যখন সুমন ধরা পরে সেই সময়ও সে তৃনমূল নেতার স্করপিও গাড়িটি চালাচ্ছিল। পুলিশ সূত্রে  জানা গিয়েছে যে, রবিবার রাতে যখন তারা সুমনকে ধরে সেই সময় সে মদ্যপ অবস্থায় ছিল।

এবং গাড়ির গতি ছিল  লাগাম ছাড়া। গাড়িটি রাত ১২ টা নাগাদ রাস্তার স্পিং পোস্টে ধাক্কা মারে। তখনি পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করে। সেই সময় সুমনকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করেন। কিন্তু তার কথাবার্তা  শুনে পুলিশ এর সন্দেহ হয় তাই তারা গাড়ী তল্লাশি করেন সেই সময় উদ্ধার হয় একটি লোডেড নাইন এম এম পিস্তল। সেই সময় পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে আসে থানায়।

পরের দিন অর্থাৎ সোমবার পুলিশ  তাকে গ্রেফতার করেন। পরে বালুরঘাটের বংশীহারী এলাকায় যায় পুলিশ, সেখানে গিয়ে দেখেন যে, সুমনের বাড়িতে তালা দেওয়া রয়েছে। এই দিন এলাকাজুড়ে খবরটি ছড়িয়ে পরার পর থেকেই চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি সৃস্টি হয়। ডিএসপি ধীমান মিত্র এই ঘটনা প্রসঙ্গে সাংবাদিক বৈঠক করেন।

কিন্তু তাকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় যে, তৃণমূল বিধায়কের গাড়ি থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারের ব্যাপারে আপনার মতবাদ কি?  তিনি সুকৌশলে এই ব্যাপারটি এড়িয়ে যান। তিনি বলেন যে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। যে যুবককে গ্রাপ্তার করা হয়েছে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে আমরা কিছু জানতে পারলে আপনাদের সঙেসঙে জানিয়ে দেওয়া হবে।
#অগ্নিপুত্র