Press "Enter" to skip to content

সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অস্বস্থিতে পড়ে কট্টরপন্থী আসাউদ্দিন ওয়েসী যা বললেন, শুনলে আপনিও রেগে লাল হবেন।

গতকাল ের ৩ জাজের বেঞ্চ বহুমতের সাথে গুরুত্বপূর্ণ রায় দিয়ে সাফ জানিয়েছে যে ইসলামে মসজিদ নামাজের অভিন্ন অংশ নয়। ের এই সিদ্ধান্তের পর কংগ্রেস, বামপন্থী ও কট্টরপন্থী ভারতবিরোধী শক্তিগুলি অস্বস্থিতে পড়ে গিয়েছে। কারণ এবার দেশ নির্মাণের দিকে পদক্ষেপ নিয়েছে। ২৯ অক্টোবর থেকে ে অযোধ্যা মামলায় মুখ্য শুনানি হবে। আর গতকালের রায়ের সম্পূর্ন লাভ হিন্দু পক্ষ পাবে। কারণ অযোধ্যায় বিবাদ মামলায় হিন্দু পক্ষ দাবি করেছিল যে মসজিদ ইসলামের অভিন্ন অংশ নয় এবং মসজিদকে স্থানান্তরিত করা সম্ভব। গতকাল এটা স্পষ্ট করে দেয় যে মসজিদ ইসলামের অভিন্ন অংশ নয়।

সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ওয়াসিম রিজভীর মতো মানুষেরা সমর্থন জানিয়েছে তেমনি কিছু কট্টরপন্থী ব্যাক্তিরা তাদের বিষাক্ত মন্তব্য ছুঁড়তে শুরু করে দিয়েছে। প্রথমত আপনাদের জানিয়ে দি, আসাউদ্দিন ওয়েসীর মতো হিন্দু মুসলিম একতা বিরোধরা কট্টরপন্থীরা বলে যে আমরা কোর্টের সম্মান করি কিন্তু আসলে এরা আল তাকিয়া করে অর্থাৎ মিথ্যা বলে। আসলে এতদিন যখন হিন্দুরা আস্থার বিষয় বলে রাম মন্দির তৈরির দাবি করতো তখন ওয়েসী বলতেন “এটা আস্থার বিষয় নয় এটা জমির ব্যাপার, আদালত জমির বিবাদের ব্যাপার নিয়ে শুনানি করছে। আদালত যা রায় দেবে তাই আমরা সমর্থন করবো।”

Subramanian Swamy
- Subramanian Swamy -

কিন্তু এখন যখন আদালতের রায় হিন্দুপক্ষের দিকে আসতে শুরু করেছে তখন ওয়াসীর মুখে অন্য কথা শোনা যাচ্ছে। ওয়েসী গতকাল বলেছেন, ‘ আমরা অযোধ্যায় মসজিদ বানিয়ে ছাড়বো, আমরা অযোধ্যায় মসজিদের ক্লেম কখনো ছাড়বো না। আমরা যেনতেন প্রকারে মসজিদ নির্মাণ করবোই।’ অর্থাৎ এতদিন যখন কোনো গুরুত্বপূর্ণ রায় আসেনি ততদিন আদালতকে মানার কথা বলতেন ওয়েসী কিন্তু এখন রায় আসতে না আসতেই অন্য বক্তব্য বলতে শুরু করেছেন। অবশ্য আসাউদ্দিন ওয়েসীর মন্তব্য থেকে এটা স্পষ্ট যে তিনিও কালকের মন্তব্য বুঝতে পেরেছেন যে রামমন্দির অবশ্যই নির্মাণ হবে।

Bengali News- Supreme Court -Ayodhya Verdict
Bengali News- Supreme Court -Ayodhya Verdict

কারণ আইন ও সংবিধান অনুযায়ী হিন্দুপক্ষ জয়ী হবে। ওখানে আগেও মন্দির ছিল এবং আবার মন্দির নির্মাণ হবে। এই জন্যেই ওয়েসীর বক্তব্য যে তিনি মসজিদের দাবি কখনো ছাড়বেন না। অর্থাৎ ওয়েসী সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে যাবেন। জানিয়ে দি, তিন তালাকের সময়েও আসাউদ্দিন এইভাবে আদালতের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে আদালত কে ? মুসলিমদের পার্সোনাল ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করার!