Press "Enter" to skip to content

হটাৎ সন্ধেয় এমস পৌঁছালেন রাজনাথ সিং ও অমিত শাহ। অটলজি কে নিয়ে পাওয়া গেল এই খবর।

১১ জুন দেশের একটা বড়ো খবর সামনে এসেছিল যা সমগ্র দেশকে স্তব্ধ করে দিয়েছিল। খবর ছিল এই যে দেশের পূর্ব প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন যার জন্য উনাকে এইমস এ ভর্তি করা হয়েছে। এই খবর আসার সাথে সাথে সমস্ত পার্টির নেতারা দিল্লির এমস এ পৌঁছে যান অটলজির খোঁজ নেওয়ার জন্য। এমনকি দেশের সমস্থ মিডিয়া এমস এর বাইরে গিয়ে বিশালাকার ভিড় তৈরি করেছিল। এমস এর বিশেষ ডক্টরদের দেখাশোনায় চিকিৎসা হয় প্রধানমন্ত্রীর।

যারপর ধীরে ধীরে অটলজির শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়। ডক্টররা জানিয়েছিলেন যে অটলজির শরীরের ইনফেকশন দেখা গেছিলো যার জন্য উনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। কিন্তু যতদিন না অটলজি সম্পূর্নভাবে সুস্থ হচ্ছেন ততদিন উনাকে এমস এ রাখা হবে। একদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হটাৎ প্রটোকল ভেঙে রাতে আটলজিকে দেখার জন্য এমসে পৌঁছে ছিলেন। এখন অটলজির শারীরিক অবস্থার উপর আপডেট এসেছে।

 

আসলে খবর এসেছিল যে ১১ আগস্ট অটলজির শারীরিক অবস্থা আরো একবার খারাপ হয়ে পড়েছে। যদিও এমস শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে নিষেধ করেছে। এই খবর পাওয়ার পর কেন্দ্রীয় সরাষ্ট মন্ত্রী রাজনাথ সিংহ ও বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ উনার অবস্থার খোঁজ নিতে পৌঁছান। সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী এখন অটলজির অবস্থা ঠিক রয়েছে। উল্ল্যেখ, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় লাগাতার অটলজির শারীরিক অবস্থার উপর নজর রাখছেন।

 

আপনাদের জানিয়ে দি, অটলজি ডিমেনশিয়া নামক একটা গম্ভীর ব্যাধিতে ভুগছেন এমনকি উনি ২০০৯ থেকে হুইল চেয়ারে আছেন। এমসে আটলজির দেখাশোনা করার জন্য দেশের অনেক রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্ব ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পৌঁছেছিলেন। আর এখন রাজনাথ সিং ও অমিত শাহ অটলজির শারীরিক খোঁজ নেওয়ার জন্য পৌঁছান। জানা গেছে যে এখন উনার অবস্থা স্থির রয়েছে।